২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০

জার্মানি থেকে ১২ হাজার সেনা সরিয়ে নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

-

জার্মানি থেকে প্রায় ১২ হাজার মার্কিন সেনা সরানোর পরিকল্পনা করছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, প্রতিরক্ষা খাতে জার্মানির কম খরচ করার শাস্তিস্বরূপ এ পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। তবে মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, যুক্তরাষ্ট্রের দীর্ঘমেয়াদি কৌশলের অংশ হিসেবে সেনাদের সরানো হচ্ছে।
সবমিলিয়ে ১১ হাজার ৯০০ মার্কিন সেনা সরানো হবে জার্মানি থেকে। এর মধ্যে ৬ হাজার ৪০০ সেনা ফিরে যাবে যুক্তরাষ্ট্রে। তাদের ইউরোপের পূর্বাঞ্চলসহ বিশ্বজুড়ে অন্যত্র মোতায়েন করা হবে। বাকি ৫ হাজার ৬০০ সেনাকে মোতায়েন করা হবে ইতালি ও বেলজিয়ামসহ অন্যান্য ন্যাটো সদস্য দেশগুলোয়। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দীর্ঘ দিন ধরেই ইউরোপের ন্যাটো দেশগুলোকে প্রতিরক্ষা ব্যয় বাড়ানোর তাগিদ দিয়ে আসছেন। তিনি বলছেন, জোটের ব্যয় নির্বাহে যুক্তরাষ্ট্রের ওপর ন্যাটো সদস্যদের আর খুব বেশি নির্ভর থাকা উচিত হবে না। এর আগে ন্যাটোর সদস্য দেশগুলো ২০২৪ সালের মধ্যে প্রতিরক্ষা ব্যয় নিজ নিজ দেশের জিডিপির দুই শতাংশে উন্নিত করতে সম্মত হয়। তবে জার্মানিসহ অন্য অনেক দেশ এখন পর্যন্ত ওই লক্ষ্য অর্জন করতে পারেনি।
মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী মার্ক এসপার মঙ্গলবার জানান, কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই জার্মানি থেকে সেনা সরানো শুরু হবে। তবে কোনো নির্দিষ্ট তারিখ উল্লেখ করেননি তিনি। ট্রাম্প জানিয়েছেন, জার্মানিকে প্রতিরক্ষা খাতে কম খরচ করার শাস্তি হিসেবে এ পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। তবে এসপার এমন দাবি প্রত্যাখ্যান করেছেন। এক বিবৃতিতে মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সদর দফতর পেন্টাগন জানিয়েছে, ন্যাটোকে আরো শক্তিশালী করতে, রাশিয়ার বিরুদ্ধে প্রতিবন্ধকতা বৃদ্ধি করতে ও মার্কিন সামরিক বাহিনীর অপশন বৃদ্ধিতে এ পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। পেন্টাগনের বিবৃতি প্রকাশের কিছুক্ষণ পরই এক সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্প জানান, জার্মানি প্রতিরক্ষা খাতে যথেষ্ট খরচ না করে অবহেলাপূর্ণ আচরণ করছে। তাই তিনি এই সেনা সরানোর নির্দেশ দিয়েছেন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, মার্কিন সেনারা সেখানে আছে জার্মানিকে সুরক্ষা দিতে, ঠিক? আর জার্মানি এ সুরক্ষার জন্য অর্থ পরিশোধ করছে না। আমরা চাই না আমাদের এভাবে চুষে খাওয়া হোক। বাণিজ্য ও সামরিক, উভয় খাতে ২৫ বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রকে ব্যবহার করা হচ্ছে।


আরো সংবাদ

কোরিয়ান কালচার ডিজিটাল প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন সুররাত নুবাহ্ উমর খালিদের মুক্তি চেয়ে সরব চমস্কি-অরুন্ধতীরা কুমিল্লায় আরো ১৬ জনের করোনা শনাক্ত মালয়েশিয়ার রাজার সঙ্গে এখনই সাক্ষাৎ হচ্ছে না আনোয়ার ইব্রাহিমের নাটোরে বিয়ের বাসে হামলা, আহত ছয় কিশোরগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কয়েক কোটি টাকার সম্পত্তি বেদখল নোয়াখালীতে খেলতে গিয়ে গলায় ফাঁস লেগে শিশুর মৃত্যু অশ্লীল ছবি ও ভিডিও ধারণ করে টাকা হাতিয়ে নেয়ার মামলায় কলেজছাত্র গ্রেফতার বিএনপি ক্রমাগতভাবে ষড়যন্ত্রের পথ বেছে নিয়েছে : তথ্যমন্ত্রী মঠবাড়িয়ায় বিদ্যুৎপৃষ্টে যুবকের মৃত্যু  গলাচিপায় মাঁচা পদ্ধতিতে তরমুজ চাষে সফল চাষী

সকল

সৌদি রাজতন্ত্রকে চ্যালেঞ্জ করে সৌদি আরবে বিরোধী দল গঠন (১৫৪৭২)ধর্ষণ মামলা : ফেসবুকে যা বললেন হাসান আল মামুন (১২০৩৬)কেন বন্ধু প্রতিবেশীরা ভারতকে ছেড়ে যাচ্ছে? (৯০৩৬)শিক্ষার্থীদের অটো প্রমোশন হবে না : শিক্ষা বোর্ড (৮৯৬২)মালয় রাজনীতিতে নতুন ঝড় : প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন আনোয়ার? (৮০৭৫)সীমান্তে মাইন, মুংডুতে ৩৪ ট্যাংক (৭৬৩৬)শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার পূর্বপ্রস্তুতি নিতে পরিপত্র জারি (৭৫৮৮)এরদোগান কেন বারবার নানা মঞ্চে কাশ্মির প্রশ্ন তুলছেন? (৭৪৪৬)ঢাকা-দিল্লি সম্পর্কের অবনতি, মোদিকে দুষলেন রাহুল (৭২৭৩)দেশের জন্য আমি জীবন উৎসর্গ করলেও আমার বাবার আরো দুটি ছেলে থাকবে : ভিপি নূর (৬৭২৫)