০৬ জুন ২০২০

সৌদি রাজধানীতে হাউছিদের ক্ষেপণাস্ত্র হামলা প্রতিহত

রিয়াদ ও দক্ষিণের শহর জিজানে হামলা চালানো হয়
-

সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদ ও দক্ষিণ অঞ্চলের শহর জিজানে চালানো দু’টি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলা প্রতিহত করা হয়েছে বলে জানা গেছে। সৌদি প্রেস এজেন্সির খবরে বলা হয়, স্থানীয় সময় গত শনিবার রাত ১১টা ৩৩ মিনিটের দিকে মিসাইলগুলো ধ্বংস করা হয়েছে।
ইয়েমেনের হাউছি বিদ্রোহীদের এ হামলার দায়ী করা হচ্ছে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে কেউ এর দায় স্বীকার করেনি। রিয়াদ ও জিজানের কিছু আবাসিক এলাকায় ক্ষেপণাস্ত্রগুলোর ধ্বংসস্তূপ ছড়িয়ে পড়ে। আকাশে ধ্বংস হওয়া ক্ষেপণাস্ত্র আবাসিক এলাকায় পতিত হওয়ায় দুই নাগরিক সামান্য আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। রিয়াদের বাসিন্দারা জানান, গত শনিবার রাতে কমপক্ষে তিনটি বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। সৌদি মালিকানাধীন আল-আরাবিয়া টেলিভিশন জানায়, মার্কিন প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ব্যবহার করে এসব ক্ষেপণাস্ত্র হামলা প্রতিহত করা হয়।
ইয়েমেনের যুদ্ধরত ইরানপন্থী হাউছি গ্রুপ সৌদি আরবের অভ্যন্তরে সামরিক ও বেসামরিক লক্ষ্যবস্তুতে শতাধিক মিসাইল এবং ড্রোন হামলা চালিয়েছে। এ ছাড়া বেশ কয়েকবার রাজধানী রিয়াদেও হামলা চালিয়েছে হাউছিরা। রিয়াদ শহরটি ইয়েমেনের সীমানা থেকে প্রায় এক হাজার কিলোমিটার (৬২০ মাইল) উত্তরে। রাজধানী শহর রিয়াদে সর্বশেষ ২০১৮ সালের জুনে আক্রমণের চেষ্টা করা হয়েছিল।
তবে গত সেপ্টেম্বর থেকে এসব হামলা থেকে দূরে ছিল সংগঠনটি। গত বছর সৌদি আরবের তেলক্ষেত্রে ভয়াবহ ড্রোন হামলা চালায় হাউছিরা। এতে দেশটির তেল উৎপাদন অর্ধেকে নেমে এসেছিল। তবে এরপর থেকেই আর বড় কোনো হামলা চালায়নি হাউছিরা। গত শনিবারের হামলা নিয়ে একটি বিবৃতি প্রকাশ করেছে সৌদি আরবের সরকারি বার্তা সংস্থা সৌদি প্রেস এজেন্সি (এসপিএ)। এতে বলা হয়, রাজধানী রিয়াদ ও জিজান শহরকে লক্ষ্য করে দু’টি ব্যালিস্টিক মিসাইল হামলা হয়েছে। তবে এগুলোকে সফলভাবে ধ্বংস করা হয়েছে। এর ধ্বংসাবশেষ থেকে দুই বেসামরিক নাগরিক আহত হয়েছেন। তবে হাউছিদের পক্ষ থেকে এখনো দায় স্বীকার করা হয়নি।
সৌদি আরবের অন্যান্য অনেক শহরের মতো জিজানে সন্ধ্যা-সকাল কারফিউ চলছে। বেসামরিক লোকজনকে করোনার প্রাদুর্ভাব থেকে রক্ষায় বিশ্বের সব সশস্ত্র গোষ্ঠীকে যুদ্ধবিরতির আহ্বান জানিয়েছিলেন জাতিসঙ্ঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস। ইয়েমেনে হাউছি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে সৌদি জোটের সামরিক অভিযানের পাঁচ বছর পূর্তিতে এ আহ্বান জানান জাতিসঙ্ঘ মহাসচিব। আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত প্রেসিডেন্ট আবদু রাব্বিহ মনসুর হাদি ও তার সরকারকে উৎখাত করতে ইরান সমর্থিত হাউছি বিদ্রোহীরা তৎপরতা চালালে তাদের প্রতিহত করতে সৌদি জোট এই অভিযান শুরু করেছিল। জাতিসঙ্ঘ মহাসচিবের আহ্বানে গত বৃহস্পতিবার ইতিবাচক সাড়া দিয়েছিল ইয়েমেনের যুদ্ধরত পক্ষগুলো। তা সত্ত্বেও সৌদি রাজধানী ও অন্য শহর জিজানে এ হামলা চালানো হলো।


আরো সংবাদ





justin tv