০৬ জুন ২০২০

যুক্তরাষ্ট্রে কারাগারে দ্রুত ছড়াচ্ছে করোনা

-

যুক্তরাষ্ট্রের কারাগারগুলোতে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস। শনিবার নিউ ইয়র্কের বিভিন্ন কারাগারে অন্তত ১৩২ জন কয়েদি ও ১০৪ জন কর্মীর শরীরে করোনাভাইরাস ধরা পড়ে। কেবল নিউ ইয়র্ক নয় বরং পুরো যুক্তরাষ্ট্রজুড়েই কারাগারগুলোতে করোনার উপস্থিতির কথা জানা গেছে।
ভাইরাসের প্রকোপ ঠেকাতে বন্দী মুক্তি দেয়া হচ্ছে ঠিকই। তবে বিশ্লেষকরা বলছেন, এর গতি খুবই ধীর। ভাইরাস মোকাবেলায় যা পর্যাপ্ত নয়। যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে বড় ২০টি কারাগার যেসব শহর ও কাউন্টিতে অবস্থিত সম্প্রতি সেগুলোর ওপর জরিপ চালিয়েছে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স। এতে দেখা গেছে, গত ২২ মার্চ থেকে ২২৬ কয়েদি ও ১৩১ জন স্টাফ নিশ্চিতভাবে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে।
রিকার্স দ্বীপের কারাব্যবস্থা ইতোমধ্যেই ভয়াবহ করোনার কবলে পড়েছে। হত্যাচেষ্টার দায়ে আট বছরের সাজাপ্রাপ্ত শান হার্নান্দেজ নামের এক কয়েদি জানায়, সেখানে বন্দীদের জন্য কোনো গ্লাভস বা যথাযথ মাস্কের ব্যবস্থা নেই। থাকার মধ্যে বলতে গেলে ঠাণ্ডা পানিতে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা রয়েছে।
শান হার্নান্দেজ জানিয়েছেন, কারাগারের সেল ত্যাগের সময় তিনি নিজের মুখ ও নাক টি-শার্ট বা তোয়ালে দিয়ে ঢেকে রেখেছেন। সেখানে করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে তার কাছে এটাই একমাত্র হাতিয়ার। তিনি জানান, ২৬ মার্চ বৃহস্পতিবার কারাগারে বন্দীদের পাহারা দেয়ার সময় এক নারী প্রহরী প্রথমে কাশি দেয়। একপর্যায়ে গাল লাল হয়ে মেঝেতে পড়ে যায়। বন্দীদের চোখের সামনেই এ ঘটনা ঘটে।
শান হার্নান্দেজ বলেন, ‘কর্মকর্তাদের পাশাপাশি আমরাও অপেক্ষাকৃত ভালো সুরক্ষার জন্য আবেদন করছি। তাদের দিক থেকে সহায়তা মিলছে না। শেষ পর্যন্ত আমরা কেবলই কয়েদি, দ্বিতীয় শ্রেণীর নাগরিক। আমরা পশুর পালের মতো।’


আরো সংবাদ





justin tv