০৪ এপ্রিল ২০২০
যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন

ডেমোক্র্যাট বিতর্কে তোপের মুখে স্যান্ডার্স

বিতর্কে স্যান্ডার্সের প্রতি প্রশ্ন ছুড়ে দিচ্ছেন সিনেটর এলিজাবেথ ওয়ারেন : এএফপি -

যুক্তরাষ্ট্রের আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট দলের মনোনয়নপ্রত্যাশীদের মধ্যে মঙ্গলবার সাউথ ক্যারোলিনায় নির্বাচনী বিতর্কে অন্য প্রতিদ্বন্দ্বীদের সম্মিলিত আক্রমণের মুখে পড়েছেন ভারমন্টের সিনেটর বার্নি স্যান্ডার্স। তার প্রার্থিতা ডেমোক্র্যাটিক পার্টির জন্য ‘বিপর্যয়’ ডেকে আনবে বলে মন্তব্য করেছেন বেশির ভাগ মনোনয়নপ্রত্যাশী।
স্যান্ডার্স প্রার্থী হলে হোয়াইট হাউজ তো দূর, ডেমোক্র্যাটরা কংগ্রেসের নিম্নকক্ষের নিয়ন্ত্রণও হারাতে পারে বলেও সতর্ক করেছেন তারা। নিউ ইয়র্কের সাবেক মেয়র মাইকেল ব্লুমবার্গ, ইন্ডিয়ানারা সাউথ বেন্ডের পিট বুটিগিগের পাশাপাশি ম্যাসাচুসেটস ও মিনোসেটার দুই সিনেটর এলিজাবেথ ওয়ারেন ও অ্যামি ক্লবুচারও এদিন স্যান্ডার্সের দিকে তোপ দেগেছেন। বিতর্কে প্রত্যেক মনোনয়নপ্রত্যাশীই ধারাবাহিকভাবে অন্য মনোনয়নপ্রত্যাশীদের কথার মাঝখানে বিঘœ ঘটিয়েছেন, চিৎকার করে প্রতিবাদ জানিয়েছেন এবং কেউই তাদের জন্য নির্ধারিত সময়সীমা মানেননি; কিন্তু বেশির ভাগ মনোনয়নপ্রত্যাশীই এক জায়গায় একমত ছিলেন, তা হলো স্যান্ডার্সের বিরোধিতা।
তাদের ভাষ্যÑ ভারমন্টের সিনেটরকে প্রার্থী করা হলে, নভেম্বরের নির্বাচনে তিনি রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে ধরাশায়ী হবেন। ধনকুবের ব্লুমবার্গ বলেছেন,‘বার্নি ট্রাম্পের কাছে হারবেন; তার পাশাপাশি প্রতিনিধি পরিষদ, সিনেট এমনকি অনেক রাজ্যও লালেদের (রিপাবলিকান) হাতে চলে যাবে।’ বুটিগিগের আক্রমণের তীর ছিল স্যান্ডার্স প্রস্তাবিত ‘সবার জন্য স্বাস্থ্যসেবার’ দিকে। এ ধরনের কর্মকাণ্ডে সরকারের খরচ কত হবে, তা নিয়ে ভারমন্টের সিনেটরের একেকবার একেক তথ্য দেয়ার কড়া সমালোচনা করেছেন তিনি। স্যান্ডার্স বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে পারেন বলেও সতর্ক করেছেন তিনি।
বুটিগিগ বলেছেন, ‘(তিনি প্রার্থী হলে) কী হবে, তা আমি স্পষ্ট করে বলতে পারি। এরকমটা হলে তা ডোনাল্ড ট্রাম্পের ঝুলিতে আরো চার বছর যোগ করবে। আপনি যদি মনে করেন যে, শেষ চার বছর ছিল বিশৃঙ্খল, বিভেদময়, বিষাক্ত, দুর্বিষহ; তাহলে ২০২০ সালের বার্নি স্যান্ডার্স বনাম ডোনাল্ড ট্রাম্পের সময় যে এর চেয়েও বেশি কিছু আসছে, তা ভাবতে পারেন।’
এক সময় স্যান্ডার্সের মিত্র হিসেবে বিবেচিত ওয়ারেন বলেছেন, তিনি নিজেকে ভারমন্টের সিনেটরের চেয়ে যোগ্য প্রার্থী বলেই মনে করেন। অন্য দিকে ক্লুবচার বলেছেন, স্যান্ডার্স কিংবা ওয়ারেন কেউই সিনেটে তাদের নেতৃত্ব গুণ দেখাতে পারেননি।
মঙ্গলবারের বিতর্কে অন্য মনোনয়নপ্রত্যাশীদের এমন আক্রমণের মুখেও স্যান্ডার্সকে অবিচল থাকতে দেখা গেছে। এ দিনও তিনি তার প্রতিশ্রুতিগুলোই পুনর্ব্যক্ত করেছেন। স্বাস্থ্যসেবাকে মানবাধিকার হিসেবে অ্যাখ্যা দিয়েছেন; উত্থাপন করেছেন অর্থনৈতিক ও সামাজিক ন্যায়বিচারের মতো ইস্যুগুলোকে। স্যান্ডার্স বলেছেন, বেসরকারি স্বাস্থ্য বীমার বদলে তিনি সরকার পরিচালিত ‘সবার জন্য স্বাস্থ্যসেবা’র যে প্রতিশ্রুতি হাজির করেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের সব জনগণ তাতে সমর্থন দিয়েছে।
ফেব্রুয়ারির তিনটি অঙ্গরাজ্যে ককাস ও প্রাইমারির পর ৭৮ বছর বয়সী এ ‘সোস্যাল ডেমোক্র্যাট’ই এখন দলের মনোনয়নপ্রত্যাশীদের মধ্যে এগিয়ে আছেন। শনিবার সাউথ ক্যারোলিনা প্রাইমারি ও মার্চের প্রথম মঙ্গলবার ১৪টি অঙ্গরাজ্যে একযোগে লড়াইয়ের আগে তার জয়রথ ঠেকাতে এ নির্বাচনী বিতর্কই ছিল অন্য প্রতিদ্বন্দ্বীদের জন্য শেষ সুযোগ।
এ দিনের বিতর্কে ব্লুমবার্গকে নেভাডার তুলনায় অনেক গোছানো ও আক্রমণাত্মক মনে হয়েছে। স্যান্ডার্সকে আক্রমণে এ দিন তিনি ভারমন্টের সিনেটরের প্রচারে ‘রুশ সহযোগিতা চেষ্টার’ বিষয়ও তোলেন। নিউ ইয়র্কের সাবেক এ মেয়র বলেন, ‘ভøাদিমির পুতিন মনে করেন, ডোনাল্ড ট্রাম্পেরই যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হওয়া উচিত। এ কারণেই রাশিয়া স্যান্ডার্সকে ডেমোক্র্যাট প্রার্থী করতে চায়, যেন তিনি ট্রাম্পের কাছে হেরে যান।’
ব্লুমবার্গের এ ভাষ্যের বিরোধিতা করে স্যান্ডার্স রুশ প্রেসিডেন্টের দিকে পাল্টা তোপ দেগেছেন। তিনি বলেছেন, ‘মিস্টার পুতিন, যদি আমি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হই, বিশ্বাস করুন, আপনি আর কোনো নির্বাচনেই হস্তক্ষেপ করতে পারবেন না।’ সাম্প্রতিককালে স্যান্ডার্সের মুখে কিউবার বিপ্লবী নেতা ফিদেল কাস্ত্রোর প্রশংসা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন তার প্রতিদ্বন্দ্বীরা।


আরো সংবাদ

আত্মহত্যার আগে মায়ের কাছে স্কুলছাত্রীর আবেগঘন চিঠি (১৩৫৩০)সিসিকের খাদ্য ফান্ডে খালেদা জিয়ার অনুদান (১২৬০৬)করোনা নিয়ে উদ্বিগ্ন খালেদা জিয়া, শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল (৯৩১৫)ভারতে তাবলিগিদের 'মানবতার শত্রু ' অভিহিত করে জাতীয় নিরাপত্তা আইন প্রয়োগ (৮৪৯০)করোনায় নিশ্চিহ্ন হয়ে গেল ইতালির একটি পরিবার (৭৮৬৪)করোনার মধ্যেও ইরান-যুক্তরাষ্ট্র আরেক যুদ্ধ (৭১৪০)করোনায় আটকে গেছে সাড়ে চার লাখ শিক্ষকের বেতন (৬৯৩১)ইসরাইলে গোঁড়া ইহুদির শহরে সবচেয়ে বেশি করোনার সংক্রমণ (৬৮৯০)ঢাকায় টিভি সাংবাদিক আক্রান্ত, একই চ্যানেলের ৪৭ জন কোয়ারান্টাইনে (৬৭৬১)করোনাভাইরাস ভয় : ইতালিতে প্রেমিকাকে হত্যা করল প্রেমিক (৬২৯৬)