Naya Diganta
রাজশাহীতে প্রতিমন্ত্রী পলক

আজকের স্টার্টআপরা আইসিটি ইন্ডাস্ট্রিতে নেতৃত্ব দেবে

রাজশাহীতে প্রতিমন্ত্রী পলক

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, আজকে যারা স্টার্টআপ, চতুর্থ শিল্পবিপ্লবে তারাই বাংলাদেশের আইসিটি ইন্ডাস্ট্রিতে নেতৃত্ব প্রদান করবে।

বাংলাদেশের স্টার্টআপদের জন্য সব ধরনের সুবিধা আইসিটি বিভাগ থেকে দেয়া হচ্ছে। আমরা চাই এসব স্টার্টআপ থেকেই বড় বড় আইটি প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠুক। এ জন্য স্টার্টআপদের প্রয়োজনীয় মেন্টরিং এবং ফান্ডিং নিশ্চিত করতে আমরা কাজ করছি।

তিনি বলেন, দেশের প্রতিটি হাই-টেক পার্কে স্টার্টআপদের জন্য একটি করে ফ্লোর বরাদ্দ রাখা হয়েছে যেখানে তারা বিনা ভাড়ায় কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ তাদের সব ধরনের ইউটিলিটি সুবিধা প্রদান করছেন।

বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে রাজশাহীর শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টারে তিন দিনব্যাপী ‘স্টার্টআপ ক্যাম্প’ উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন।

সংশ্লিষ্টরা জানান, বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সারাদেশে স্থাপিত সকল স্থাপনায় কমপক্ষে একটি করে ফ্লোর স্টার্টআপসমূহের জন্য বিনামূল্যে বরাদ্দ প্রদান করা হচ্ছে। এই ফ্লোরগুলোতে বিদ্যমান মোট ১৫১টি স্টার্টআপ বর্তমানে এক বছরের জন্য কো-ওয়ার্কিং স্পেস, লজিস্টিক ও ইউটিলিটি সাপোর্টের পাশাপাশি তাদের জন্য এক বছর ব্যাপী ইন-হাউজ মেন্টরিং ফর স্টার্টআপ (আইএমএস) এর উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

তারা আরো জানান, শুধুমাত্র ২০২১ সালেই প্রায় ১১৫টি স্টার্টআপ মোট ৪৩৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলারেরও বেশি বিনিয়োগ পেয়েছে। এছাড়া চলতি বছরব্যাপী মেন্টরিংয়ের অংশ হিসেবে প্রতিটি স্থানে তিন দিনব্যাপী স্টার্টআপ ক্যাম্পের আয়োজন করা হচ্ছে। এরই অংশ হিসেবে প্রথমে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব হাই-টেক পার্ক, রাজশাহীর আওতাধীন শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টারে বরাদ্দ প্রাপ্ত ৩০টি স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠানের জন্য স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক মেন্টরদের দ্বারা বিশেষ সেশন পরিচালিত হচ্ছে। তিন দিনব্যাপী এ কর্মসূচিতে মোট ১২টি সেশনের পাশাপাশি প্রত্যেক স্টার্টআপের জন্য ৩টি করে সার্ভে সেশন আয়োজন করা হবে।

এই ক্যাম্প হতে সংগৃহীত তথ্যের ভিত্তিতে স্টার্টআপ সমূহের প্রয়োজন অনুসারে ছয় মাসের একটি কারিকুলামের মাধ্যমে পার্সোনালাইজড ইনকিউবেশন প্রোগ্রাম পরিচালনা করা হবে। পরবর্তীতে আবারো তথ্য সংগ্রহের মাধ্যমে স্টার্টআপদের গ্রোথ মেপে সফলতা হিসেব করা হবে।

স্টার্টআপ ক্যাম্পটিতে বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা: বিকর্ণ কুমার ঘোষ, এমাজন এর স্টার্টআপ ও সল্যুশন আর্কিটেক্ট মো. মাহদি-উজ জামানসহ সরকারি ও বেসরকারি মেন্টররা সেশন কন্ডাক্ট করবেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব হাই-টেক পার্ক, রাজশাহীর প্রকল্প পরিচালক এ কে এ এম ফজলুল হক, উপ-পরিচালক মাহফুজুল কবীরসহ বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের স্টার্টআপ অ্যান্ড পলিসি কনসালটেন্ট আশিকুর রহমান রুপকের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ক্যাম্পটি ২৭ থেকে ২৯ জানুয়ারি প্রতিদিন বেলা ১১টা থেকে বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে অনুষ্ঠিত হবে।