Naya Diganta
মুজাফ্ফরাবাদ-ইয়ারকান্দ সড়ক

পাকিস্তান-চীন নতুন প্রকল্পে উদ্বিগ্ন ভারত

মুজাফ্ফরাবাদ-ইয়ারকান্দ সড়ক

পাকিস্তান ও চীনের মধ্যকার নতুন একটি সড়ক প্রকল্প নতুন দুশ্চিন্তা সৃষ্টি করেছে ভারতের মধ্যে। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে ভারতের জন্য তা কাঁটা হয়ে দাঁড়াতে পারে বলে ভারতীয় বিশ্লেষকেরা মনে করছেন। আজাদ কাশ্মিরের মুজাফফরাবাদ থেকে চীনের সিনকিংয়ারে ইয়ারকান্দ পর্যন্ত একটি সড়ক স্থাপনের আলোচনা চলছে। এই সড়ক তৈরি হয়ে গেলে বিভিন্ন কূটনৈতিক ও সামরিক দিক থেকে ভারতের মাথাব্যথার কারণ হতে পারে।
আবার যে উপত্যকার ওপর দিয়ে এই রাস্তা নির্মাণ হবে, সেই সাক্সগাম উপত্যকা ১৯৬৩ সালে পাকিস্তান চীনকে দিয়ে দেয়। আর এই সড়ক তৈরি হলে, সিয়াচেন সীমান্তে ভারতের সেনাবাহিনীর জন্য বড়সড় চ্যালেঞ্জ উপস্থিত হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। যে এলাকা দিয়ে পাকিস্তান ও চীনের মধ্যের এই সড়ক যাবে, সেখানে সিয়াচেন ছাড়াও রয়েছে রিমো, তেহরাম হিমবাহ। এই এলাকার সংলগ্ন বাকি হিমবাহের জায়গা দখলে রেখেছে চীনা লালফৌজ।
উত্তরে চীনের সাক্সগাম উপত্যকা, পশ্চিমে আজাদ কাশ্মির। যখন চীনের লালফৌজ ক্রমাগত ভারতীয় বাহিনীকে রোখার চেষ্টা করেছে, এমন প্রেক্ষাপটে এই নয়া রাস্তার প্রকল্প ভারতের উদ্বেগের কারণ হয়ে উঠছে। এই সড়ক যোগাযোগে যে পাকিস্তান ও চীনের সেনা কার্যকলাপ বাড়বে তা বলাই বাহুল্য। তেমনি তা ভারতের জন্যও কাঁটা হয়ে উঠছে, কারণ এই রাস্তার ফলে ভারত সীমান্তের দুই দিক কার্যত চ্যালেঞ্জিং হয়ে যেতে পারে। ভারতীয় বিশেষজ্ঞদের মতে, সিয়াচেন সীমান্তে ভারতীয় সেনাকে সবচেয়ে বেশি চ্যালেঞ্জে ফেলতে পারে এই সড়ক। ফলে এমন এক পরিস্থিতিতে সিয়াচেন সীমান্তে পোক্ত প্রহরা ভারতের কূটনৈতিক দিক থেকে পাখির চোখ হয়ে উঠছে।