Naya Diganta

শায়েস্তাগঞ্জে ইউএনও পরিচয় দিয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগ

হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) পরিচয় দিয়ে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে একটি চক্র চাঁদাবাজি করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে শায়েস্তাগঞ্জ পৌর এলাকার তিনটি হোটেল অ্যান্ড রেস্টুরেন্টের মালিকের কাছে ভ্রাম্যমাণ আদালতের ভয় দেখিয়ে চক্রটি চাঁদা দাবি করে বলে স্থানীয়রা জানান। এ ঘটনায় সবাইকে সতর্ক থাকতে বলেছে উপজেলা প্রশাসন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার বিকেলে একটি মোবাইল নম্বর থেকে শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভার দাউদনগর বাজারের শেরাটন হোটেল অ্যান্ড রেস্টুরেন্টের মালিক আব্দুল হামিদের মোবাইল ফোনে কল আসে। এ সময় কলদাতা নিজেকে শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) পরিচয় দেন ও বলেন, ‘আপনার দোকানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে। মোটা অঙ্কের জরিমানা থেকে রেহাই পেতে খুব শিগগির বিকাশ নম্বরে টাকা পাঠান।’

একইভাবে অন্য আরেকটি নম্বর থেকে দাউদনগর বাজারের হোটেল আল সোহাগের মালিক আব্দুল বাছির ও স্টেশন রোডের পানাহার হোটেল অ্যান্ড রেস্টুরেন্টের মালিক ও ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মুকিতের কাছেও চাঁদা চাওয়া হয়।

ওই তিন ব্যবসায়ীর ভাষ্য, প্রথমবার ফোনকল পাওয়ার পর তারা বেশ আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। কিন্তু এরপর আরো কয়েকবার চক্রটির ফোন আসলে তাদের সন্দেহ হলে তারা ইউএনও মো: মিনহাজুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করেন। এরপর উপজেলা প্রশাসনের ফেসবুক পেজে একটি বার্তা দেন ইউএনও। সেই বার্তায় তিনি এ ধরনের প্রতারক থেকে সবাইকে সতর্ক থাকার অনুরোধ জানান।

এ বিষয়ে শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো: মিনহাজুল ইসলাম বলেন, ‘ঘটনাটি জানার পরপরই থানা পুলিশকে জানিয়েছি। তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে প্রতারক চক্রটিকে শনাক্তের চেষ্টা চলছে। পরপর ০১৬১০৪৬৯৮১০, ০১৯২৯৫৫৪৮৯৭ ও ০১৯৪২২৮৬৪৮১ এই নম্বরগুলো থেকে চাঁদা চাওয়া হয় বলে জানিয়েছেন তিনি।