Naya Diganta

গ্রামীণ ফোনের কল ড্রপ সবচেয়ে বেশি : বিটিআরসি চেয়ারম্যান

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার বলেছেন, ‘কল ড্রপ নিয়ে জিপিকে (গ্রামীনফোন) দোষতেই হবে । কারণ জিপির কল ড্রপ বেশি ।

সবচেয়ে বেশি কল ড্রপ গ্রামীনফোনের ছিল। অতি সম্প্রতি গ্রামীন ফোনের কল ড্রপ কিছুটা কমেছে।’

বৃহস্পতিবার বিটিআরসির প্রধান কার্যালয়ে টেলিকম রিপোর্টার্স নেটওয়ার্ক বাংলাদেশের (টিআরএনবি) সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় কালে বিটিআরসির চেয়ারম্যান এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘কল ড্রপ নিয়ে আমিও ভোগান্তিতে আছি। আরেকটি আমার বড় ভোগান্তির কারণ হচ্ছে মানুষের ভোগান্তি। ১৭ কোটি মানুষের সমস্ত দায় আমার ওপরেই। কারণ তাদেরকে কোয়ালিটি সার্ভিস এনসিওর করার দায় আমার ওপর।’

শ্যাম সুন্দর সিকদার জানান, দুর্বল নেটওয়ার্ক এবং কল ড্রপের সমস্যা কমাতে বিটিআরসি ৩০০টি উপজেলায় টেস্ট ড্রাইভ পরিচালনা করছে।

তিনি বলেন, ‘কল ড্রপ নিয়ে আমাদের প্রায় ২২৭টি উপজেলায় আমাদের টেস্ট ড্রাইভ হয়েছে । তাতে ১২৮০০ কিলোমিটার কাভার করেছে । রংপুরের টেস্ট ড্রাইভ রিপোর্ট অনুযায়ী, সব টেলিকম অপারেটরের কল ড্রপের সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতির সম্মুখীন হচ্ছেন মোবাইল ব্যবহারকারীরা।’

চেয়ারম্যান বলেন, ‘আমরা ড্রাইভের সাথে নিয়মিতভাবে চিঠি এবং নির্দেশনা পাঠিয়ে টেলিকম অপারেটরদের ওপর আমাদের চাপ অব্যাহত রেখেছি।’

ভাইস চেয়ারম্যান ও কমিশনারের নেতৃত্বে দুটি হাই-প্রোফাইল কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে জানান বিটিআরসি প্রধান। তিনি বলেন, ‘অপারেটর অফিস এবং ক্ষেত্র থেকে ডেটা সংগ্রহ করা হচ্ছে এবং তাদের নেটওয়ার্ক পরিষেবার অবস্থা সম্পর্কে তাদের অবহিত করা হচ্ছে। কারণ ডাটা ফরওয়ার্ডিংয়েও সমস্যা রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, ‘গত ৮ মার্চ আমরা অপারেটরদের কাছে স্পেকটাম নিলামে বিক্রি করেছিলাম। আবার ২.৩, ২.৬ ও ৩.৫ এই তিনটি ম্যাগাহার্টস অকশন করবো আগামী বছর মার্চ মাসে । এ বছরই ডিসেম্বর মাসেই অকশন দেয়ার প্ল্যান ছিল। কিন্তু অপারেটরদের অনুরোধে সেটি পিছানো হয়েছে।’

মতবিনিময় সভায় টিআরএনবি’র সভাপতি রাশেদ মেহেদী ও সাধারণ সম্পাদক সমীর কুমার দের নেতৃত্বে টিআরএনবি’র সদস্যরা এবং ও বিটিআরসি’র ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্হিত ছিলেন ।

সূত্র : ইউএনবি