Naya Diganta

নির্বাচনের আগে ভয়ভীতি দেখানো হয়েছিল তৃতীয় লিঙ্গের নজরুলকে!

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন-ভয়ভীতি দেখানো হয়েছিল তৃতীয় লিঙ্গের নজরুলকে
নির্বাচনের আগে ভয়ভীতি দেখানো হয়েছিল তৃতীয় লিঙ্গের নজরুলকে!

তৃতীয় লিঙ্গের কোনো ব্যক্তি হিসেবে বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো একটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়া নজরুল ইসলাম ঋতু বলছেন, তাকে নানারকম ভয়ভীতি দেখানো হয়েছিল, কিন্তু তিনি তাতে দমে যাননি। জনগণ তাকে ভালোবাসার প্রতিদান দিয়েছে।

রোববার তৃতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ঝিনাইদহের ত্রিলোচনপুরে নৌকা প্রতীকের আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নজরুল ইসলাম সানাকে পরাজিত করেন স্বতন্ত্র প্রার্থী নজরুল ইসলাম ঋতু।

বাংলাদেশে এই প্রথম তৃতীয় লিঙ্গের কোনো ব্যক্তি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন। যিনি স্থানীয়দের মাঝে ঋতু হিজড়া নামে পরিচিত।

নজরুল ইসলাম ঋতু নির্বাচনী অভিজ্ঞতা নিয়ে গণমাধ্যমকে বলেছেন, ‘প্রথম প্রথম আমার ভালোই যাচ্ছিল। কিন্তু নির্বাচন যখন ঘনিয়ে এলো, তখন আমার ওপর খুব অত্যাচার শুরু হলো। আমার পোস্টার থাকতো না, আমার লোকজনকে মারধর করা হচ্ছে, আমাকে মাঠে নামতে দেয়া হচ্ছে না, অপমান করা হচ্ছে। তবে আমি বলেছি, আমাকে যতই অপমান করা হোক না কেন, আমার পোস্টার যতই ছিঁড়ুক না কেন, আমার কোনো অসুবিধা নেই। কিন্তু মানুষের মনের ভেতরে যে পোস্টার ঢুকে গেছে, সেটা কিন্তু ছিঁড়ে নিতে পারবে না।’

প্রাথমিক ফলাফল অনুযায়ী, নজরুল ইসলাম ঋতু ৯ হাজার ৫৫৭টি ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নৌকা প্রতীকের নজরুল ইসলাম সানা পেয়েছেন ৪ হাজার ৫২৯টি ভোট।

বিজয়ী হয়ে আনন্দিত নজরুল ইসলাম ঋতু বলছিলেন, নির্বাচনে জয়ী হয়ে তার খুব ভালো লাগছে। এলাকাবাসীকে তিনি ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর চেয়ে পাঁচ হাজারের বেশি ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন নজরুল ইসলাম ঋতু। কোনো গুণাবলীর কারণে সেখানকার ভোটাররা তাকে এতো ভোট দিয়েছে বলে তিনি মনে করছেন?

এই প্রশ্নে জবাবে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম বলছেন, ‘পেছনে কী কারণ, সেটা বলতে পারবো না ভাই। কিন্তু গত ১৫ বছর ধরে আমি জনগণের মাঝে আছি। তাদের আমি ভালোবেসেছি, তারাও আমাকে ভালোবেসেই ভোট দিয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘গত ১৫ বছর ধরে জনগণের বিপদে আপদে সবসময় আমি জড়িয়ে যাই, কাজকামে জড়িয়ে যাই, গরীব মানুষ যারা আছে, তাদের কাছে আমি ছুটে যাই। কারো বিয়াশাদী লাগলে বা কারো বিপদ হলে আমি ছুটে যাই। এই জন্য হয়তো জনগণ আমাকে ভালো মনে করেছে, ভালো মনে করে আমাকে ভোট দিয়েছে ভাই।’

বাংলাদেশে তৃতীয় লিঙ্গের ব্যক্তিরা সমাজে অবহেলিত বলে অভিযোগ রয়েছে। অনেক ক্ষেত্রেই তাদের নারী-পুরুষের মতো পুরোপুরি সম্মান দেয়া হয় না। মাত্র কয়েক বছর আগে তাদের ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

তৃতীয় লিঙ্গের হলেও ঝিনাইদহের ত্রিলোচনপুর ইউনিয়নের বাসিন্দারা তাকে ভোট দিয়ে জনপ্রতিনিধি নির্বাচন করেছে। এর মাধ্যমে কী বাংলাদেশে তৃতীয় লিঙ্গের মানুষের প্রতি দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন হচ্ছে বলে মনে হচ্ছে?

নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম ঋতু বলছেন, ‘আমাদের ইউনিয়নে আমি নির্বাচন করেছি। জনগণ আমাকে ভালোবাসে, তাদের সাথে আমি মিলে গেছি। অন্যরাও যদি জনগণের সাথে মিলতে পারে, জনগণের কাজ করতে পারে, সেবা করতে পারে, তাহলে হয়তো এই দৃষ্টিটা পাল্টে যেতে পারে।’

এখন তার লক্ষ্য, সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়া। জনগণের জন্য যা করা দরকার বলে মনে হবে, তিনি সেগুলোই করবেন বলে জানান। তিনি আশা করছেন, তার দায়িত্বে পালনে স্থানীয় সবার কাজ থেকে সহায়তা পাবেন।

সোমবার বাংলাদেশে ইউনিয়ন পরিষদে তৃতীয় ধাপের নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। এবারের নির্বাচনে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক স্বতন্ত্র প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। এই নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ৫২৫ জন আর স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ৪৪৬ বিজয়ী হয়েছেন।

সূত্র : বিবিসি