Naya Diganta

পশ্চিম তীরে ১৩৫৫ বাড়ি নির্মাণ করবে ইসরাইল

পশ্চিম তীরে ইসরাইলি বসতি

অধিকৃত ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড পশ্চিম তীরে ইহুদি বসতিতে ইসরাইল নতুন করে ১৩৫৫ বাড়ি নির্মাণের ঘোষণা দিয়েছে। রোববার ইসরাইলের নির্মাণ ও গৃহায়ণ মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে এই তথ্য জানানো হয়।

বিবৃতিতে ইসরাইলি গৃহায়ণমন্ত্রী জিভ এলকিন বলেন, জায়নবাদি ভিশনের প্রয়োজনেই পশ্চিম তীরে ইহুদি উপস্থিতি জোরদার করা উচিত।

বিবৃতিতে বলা হয়, 'জুদেয়া ও সামারিয়ায় নির্মাণকাজের দীর্ঘ বিরতির পর, এক হাজারের বেশি হাউজিং ইউনিট বিক্রয়ের সূচনায় আমি সবাইকে স্বাগত জানাচ্ছি। জুদেয়া ও সামারিয়ার ইহুদি বসতি আমি অব্যাহত রাখবো।'

ফিলিস্তিনি পশ্চিম তীর ভূখণ্ডকে ইসরাইলিরা তাদের পরিভাষায় 'জুদেয়া ও সামারিয়া' নামে ডাকে।

মন্ত্রণালয়ের বিবৃতি অনুসারে সাতটি ইহুদি বসতিতে নতুন করে নির্মিত এই ঘরে দু্ই হাজারের বেশি বাসিন্দার আবাসনের ব্যবস্থা হবে।

এদিকে ফিলিস্তিনি প্রধানমন্ত্রী মোহাম্মদ ইশতাইয়া মন্ত্রিসভার এক সাপ্তাহিক বৈঠকে আগ্রাসী ভূমিকার জন্য ইসরাইলকে অন্য দেশ বিশেষ করে করে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি আহ্বান জানান।

এর আগে শুক্রবার যুক্তরাষ্টের পররাষ্ট্র বিভাগের মুখপাত্র নেড প্রাইস জানান, যুক্তরাষ্ট্র ইসরাইলের বসতি পরিকল্পনা নিয়ে উদ্বিগ্ন।

তিনি ইসরাইলি ও ফিলিস্তিনি, উভয়পক্ষকেই এমন পদক্ষেপ থেকে দূরে থাকার আহ্বান জানান যা উত্তেজনা বাড়াবে এবং দুই রাষ্ট্রভিত্তিক সমাধানের মীমাংসায় প্রচেষ্টাকে ব্যহত করবে।

১৯৬৭ সালে ছয় দিনের আরব-ইসরাইল যুদ্ধের পর ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড পশ্চিম তীর দখল করে ইসরাইল। ওই সময় থেকে ইসরাইলি নাগরিকরা পশ্চিম তীরে বসতি স্থাপন শুরু করে। দখলকৃত ভূমিতে আন্তর্জাতিক আইন অনুসারে যেকোনো স্থাপনা নির্মাণ অবৈধ হলেও এখনো পর্যন্ত পশ্চিম তীরে ইহুদি বসতি সম্প্রসারণ করে আসছে ইসরাইলি কর্তৃপক্ষ।

১৯৯৩ সালে অসলো শান্তিচুক্তির মাধ্যমে পশ্চিম তীর থেকে ধীরে ধীরে ইহুদি বসতি সরিয়ে নিয়ে ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের হাতে তার নিয়ন্ত্রণ হস্তান্তরের কথা থাকলেও ইসরাইল এই বিষয়ে এখনো কোনো উদ্যোগ নেয়নি। উপরন্তু পশ্চিম তীরে নতুন নতুন অবৈধ বসতি নির্মাণ অব্যাহত রেখেছে ইসরাইলি কর্তৃপক্ষ।

বর্তমানে জেরুসালেমসহ অধিকৃত পশ্চিম তীরে ২৫৬টি বসতিতে প্রায় সাত লাখ ইসরাইলি ইহুদি বাস করছে।

সূত্র : আলজাজিরা