Naya Diganta

বড়াইগ্রামে বিধবাকে বাড়িতে ডেকে হত্যার অভিযোগ

বড়াইগ্রামে বিধবাকে বাড়িতে ডেকে হত্যার অভিযোগ

নাটোরের বড়াইগ্রামে পাওনা টাকা নিয়ে বিরোধের জেরে জাম্বিয়া বেওয়া (৪৫) নামের এক বিধবা নারীকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত লইমুদ্দিন স্বপরিবারে পলাতক রয়েছেন।

সোমবার উপজেলার গড়মাটি গ্রামের লইমুদ্দিনের বাড়ি থেকে তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। তিনি পাবনার চাটমোহর উপজেলার হরিপুর গ্রামের মৃত আফসার আলীর স্ত্রী।

স্থানীয়রা জানান, স্বামীর মৃত্যুর পরে তিনি বড়াইগ্রামের গড়মাটি গ্রামে বাবার বাড়িতে বসবাস করতেন। তিনি ধানের চাতালে কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতেন। তিনি জমানো বেশ কিছু টাকা প্রতিবেশী লইমুদ্দিনকে সুদের উপরে ধার দেন। এনজিও থেকেও ৫০ হাজার টাকা ঋণ তুলে তিনি তাকে দেন। কিন্তু এসব টাকার কিস্তি ঠিকমত না দেয়ায় লইমুদ্দিনের সাথে জাম্বিয়া বেগমের দ্বন্দ্ব হয়। পরে বিষয়টি মিটমাটের কথা বলে রোববার সন্ধ্যায় লইমুদ্দিন জাম্বিয়াকে তার বাড়িতে ডেকে নেন। রাতে তিনি আর বাড়ি ফিরে আসেননি। সোমবার সকালে লইমুদ্দিন মোবাইলে করে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে জানান, জাম্বিয়া তার তামাকের ঘরে গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

নিহতের ভাতিজা সাহাবুল ইসলাম জানান, আমার ফুফুর দেয়া কয়েক লাখ টাকা আত্মসাতের জন্যই লইমুদ্দিন তাকে হত্যা করে বাড়ির একটি ঘরে লাশ ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা বলে চালানোর চেষ্টা করেছেন। আমরা থানায় হত্যা মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছি।

বড়াইগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম মৃধা জানান, এটা হত্যা না আত্মহত্যা সে ব্যাপারে তদন্ত চলছে। নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।