Naya Diganta

পলাতক ফিলিস্তিনি কারাবন্দীদের ধরতে ইসরাইলের ব্যয় ৩০ মিলিয়ন ডলার 

পলাতক দু’ফিলিস্তিনি কারাবন্দীদের ধরতে ইসরাইলি নিরাপত্তা বাহিনীর গ্রেফতার অভিযান এখনো চলছে

সেপ্টেম্বরের ৬ তারিখে ইসরাইলের নিরাপত্তা বাহিনী ইতিহাসের সবচেয়ে বড় গ্রেফতার অভিযান চালিয়েছে। ছয় ফিলিস্তিনি কারাবন্দী ইসরাইলের কঠোর নিরাপত্তা বেষ্টিত গিলবোয়া কারাগার থেকে পালিয়ে যাওয়ার পর এ তাদের পুনরায় আটক করতে এ অভিযান শুরু হয়েছিল। ওই গ্রেফতার অভিযানে ইসরাইলের ৩০ মিলিয়ন ডলার খরচ হয়। শক্রবার রাশিয়ার বার্তা সংস্থা স্পুটনিক এ প্রতিবেদন করেছে।

টানা ১৪ দিন ধরে ইসরাইলের সেনাবাহিনী ও দেশটির শিনবেথ গোয়েন্দা সংস্থার যৌথবাহিনী আর পুলিশ ওই ছয় ফিলিস্তিনি কারাবন্দীকে খুঁজেছে ড্রোন ও হেলিকপ্টার দিয়ে। তারা সমগ্র দেশে শতাধিক চেকপয়েন্ট তৈরি করেছিল।

পরে ইসরাইলের নিরাপত্তা বাহিনী ছয় ফিলিস্তিনি কারাবন্দীর মধ্যে চারজনকে খুঁজে পায় এবং পুনরায় গ্রেফতার করে। কিন্তু, এখনো পলাতক দু’কারাবন্দীর খোঁজ চলছে। ইসরাইলের নিরাপত্তা বাহিনী ওই দু’ফিলিস্তিনি কারাবন্দীকে এখনো খুঁজে পায়নি।

গণমাধ্যমের কাছে কোনো ধরনের তথ্য প্রকাশ না করলেও ইসরাইলি সেনাবাহিনী মনে করছে, ওই দু’ফিলিস্তিনি কারাবন্দীর একজন এখন জেনিন শহরে আছেন।

ইসরাইলি গণমাধ্যম কান বলেছে, ওই পলাতক ফিলিস্তিনি কারাবন্দীদের ধরতে ইসরাইলের প্রতিদিন তিন থেকে ছয় মিলিয়ন ডলার খরচ হয়েছে।

ইসরাইলের এ সরকারি গণমাধ্যমটি দেশটির পুলিশ বাহিনীর বরাত দিয়ে বলেছে, ইসরাইলের ইতিহাসে এটা ছিল সবচেয়ে বড় গ্রেফতার অভিযান।

সূত্র : মিডলইস্ট মনিটর