Naya Diganta

ব্রিটেনে বাংলাদেশীকে হত্যার দায়ে কিশোরকে কারাদণ্ড

ব্রিটেনের ম্যানচেস্টারে এক বাংলাদেশীকে হত্যার দায়ে অভিযুক্ত কিশোরকে কারাদণ্ড দিয়েছে ব্রিটেনের আদালত। এ বছরের ৮ জানুয়ারি নিহত বাংলাদেশীর গাড়ি চুরির সময় ওই হত্যার ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত কিশোরের জাতীয়তা ও বর্ণ প্রকাশ করেনি আদালত ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী।

জানা যায়, গাড়ি ছিনতাই করার সময় মোহাম্মাদ ইসলাম নামে ৫৩ বছরের এক বাংলাদেশীকে হত্যা করে ১৫ বছরের একজন গাড়ি চোর। গাড়ি ছিনতাই থেকে রক্ষা করতে ছিনতাইকারীর সাথে ধস্তাধস্তি করে আঘাত প্রাপ্ত হন ওই বাংলাদেশী। ওই ঘটনার দু’দিন পর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় প্রাণ হারান মোহাম্মাদ ইসলাম। মোহাম্মদ ইসলামকে হত্যার সাথে যুক্ত থাকার অপরাধে অভিযুক্ত ১৫ বছরের কিশোরকে কারাদণ্ড দিয়েছে ব্রিটেনের আদালত।

আদালতের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ঘটনার দিন নিজ গাড়ি দিয়ে খাবার ডেলিভারির কাজ করছিলেন মোহাম্মদ ইসলাম। গাড়ি থেকে নেমে হেটে এক বাসায় টেইকওয়ের খাবার দিতে যাচ্ছিলেন তিনি। যখন ইসলাম তার কাস্টমারের বাড়ির দরজা খোলার জন্য বেল বাজান তখন সেই অপরাধী কিশোর গাড়িটি স্টার্ট দেয়। এ সময় তিনি দেখতে পান তার গাড়ি কেউ একজন নিয়ে যাচ্ছে। নিজ গাড়ি ছিনতাই থেকে রক্ষা করতে গাড়ি চালু অবস্থায় ইসলাম ড্রাইভারের পাশে প্যাসেঞ্জারের সাইডের দরজা ধরে রাখেন। এ অবস্থায় ছিনতাইকারী গাড়ি চালাতে থাকে। মোহাম্মদ ইসলাম গাড়ির দরজা ঝুলে প্রায় ৩০ মিটার পর্যন্ত যেতে পারেন। এরপর অভিযুক্ত কিশোর তাকে ধাক্কা দিয়ে রাস্তায় ফেলে দেয় ও গাড়ি নিয়ে পালিয়ে যায়। এ সময় মোহাম্মদ ইসলাম গুরুতর আহত হন। আহত মোহাম্মদ ইসলাম দুই দিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকার পর প্রাণ হারান।

আদালতের পক্ষ থেকে আরো বলা হয়েছে, মোহাম্মদ ইসলাম তিন সন্তানের বাবা ছিলেন। যে কি না তার ২৫তম বিবাহবার্ষিকী হাসপাতালে অচেতন অবস্থায় কাটিয়েছিলেন।

বিষয়টি নিয়ে তদন্তকারী পুলিশ বলছে, এই ঘটনার পর অভিযুক্ত কিশোরকে তার দাদির বাড়ি থেকে আটক করা হয়। মূলত এই কিশোরসহ ম্যানচেস্টারে আরো পাঁচটি গ্রুপ দামি গাড়ি চুরির সাথে যুক্ত রয়েছে। যারা দামি গাড়ি চুরি করে কালো বাজারে বিক্রি করে দেয়। তারা ওই পাঁচটি গ্যাংয়ের সাথে যারা যুক্ত আছে তাদের খুঁজছে।