Naya Diganta

নানা আয়োজনে নারী দিবস পালন

সফল ও শ্রেষ্ঠ নারীদের সম্মান জানানো, র্যালি, আলোচনা, সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ দিনব্যাপী নানা আয়োজনে পালিত হলো আন্তর্জাতিক নারী দিবস। দিনের প্রথম প্রহরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মোমবাতি জ্বালিয়ে নারীর প্রতি সহিংসতা বন্ধের শপথ নেয় ‘আমরাই পারি’ পারিবারিক নির্যাতন প্রতিরোধ জোট।
এতে ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে যোগ দেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় মিটির সভাপতি মেহের আফরোজ চুমকি। তিনি বলেন, বাংলাদেশে স্বাস্থ্য খাতে অনেক সমস্যা থাকার পরেও নারীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ দেখেছে কী করে করোনার অতিমহামারীকে প্রবল সাহসিকতা ও দক্ষতার সাথে মোকাবেলা করা সম্ভব। তিনি নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে সবাইকে একযোগে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।
অনুষ্ঠানে আমরাই পারি জোটের চেয়ারপারসন সুলতানা কামাল বলেন, বাংলাদেশে নারীর ক্ষমতায়নে অনেক অগ্রগতি ঘটেছে। কিন্তু নারীর ক্ষমতায়ন ও সমতায়নের মেলবন্ধন হওয়ার পথে অনেক ঘাটতি রয়েছে বলেও তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, বিভিন্ন প্রকার বৈষম্যমূলক আইনের মধ্যে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন একটি, যা নারীর অধিকার এবং মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনাটিকে বাড়িয়ে দেয়। এতে জোটের নির্বাহী সমন্বয়কারী জিনাত আরা হকের সঞ্চালনায় জোটের জাতীয় কমিটির সদস্য ফওজিয়া খন্দকার ইভা, শিপা হাফিজা, এমবি আখতারসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংগঠনের প্রতিনিধি এবং আমরাই পারির ৪৮টি জেলার জেলা জোটের আহ্বায়করা অনলাইন কর্মসূচিতে যুক্ত ছিলেন।
সকাল সাড়ে ১০টায় বাংলাদেশ শিশু একাডেমি মিলনায়তনে জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ পাঁচজন জয়ীতাকে সম্মাননা দেয়া হয়। অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
এ ছাড়া দেশের সকল জেলা ও উপজেলায় নারী উন্নয়ন, ক্ষমতায়ন, অধিকার এবং এ বিষয়ে প্রচার ও সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে র্যালি, সমাবেশ ও আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
সন্ধ্যায় রাজধানীর বেইলি রোডে বাংলাদেশ গার্লস গাইড হাউজ মিলনায়তনে ট্রান্সজেন্ডার ও হিজড়া জনগোষ্ঠী দ্বারা পরিবেশিত হয় বিষয়ভিত্তিক নৃত্যানুষ্ঠান। ‘এগিয়ে যাই দৃঢ় প্রত্যয়ে’ প্রতিপাদ্য নিয়ে আয়োজিত অনুষ্ঠানের মূল লক্ষ্য বাংলাদেশের অবহেলিত হিজড়া ও ট্রান্সজেন্ডার জনগোষ্ঠীদের মধ্যে অধিকার সচেতনতা সৃষ্টি করা এবং সাধারণ মানুষের মধ্যে লৈঙ্গিক সচেতনতা বৃদ্ধি করা।
এতে অতিথি ছিলেন নির্বাচন কমিশনার বেগম কবিতা খানম, অস্ট্রেলিয়া হাইকমিশনের ফার্স্ট সেক্রেটারি সাশা ব্লুম্যান, কানাডিয়ান হাইকমিশন কাউন্সিলর (পলিটিক্যাল) রোজালি লা পানত, ইউএনএআইডিএসর কান্ট্রি ম্যানেজার ডক্টর সায়মা খান, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রাপ্ত বিশিষ্ট চলচ্চিত্র পরিচালক, চিত্রনাট্যকার, প্রযোজক নার্গিস আখতার, সর্বাধিক রাষ্ট্র ভ্রমণকারী প্রথম বাংলাদেশী পতাকাবাহী নাজমুন নাহার প্রমুখ।
এ ছাড়া জাতীয় প্রেস ক্লাবের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হয় ‘মুক্তিযুদ্ধে নারী’ শীর্ষক এক আলোচনা সভা। এতে অতিথি ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা: দীপু মনি। অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন, সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস খান, কবি হাসান হাফিজ, নারী সাংবাদিক কেন্দ্রের সভাপতি নাসিমুন আরা হক মিনু প্রমুখ।
যথাযথ মর্যাদায় আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালন করেছে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন (বিসিক)। বিসিক সম্মেলন কক্ষে দিবসটি উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিসিক চেয়ারম্যান মোশতাক হাসান এনডিসি। অনুষ্ঠান শেষে নারী সহকর্মীদের ফুল দিয়ে অভিনন্দন জানান বিসিক চেয়ারম্যান।
চট্টগ্রাম ব্যুরো জানায়, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, আমাদের সমাজ ব্যবস্থায় এখন কুসংস্কারাচ্ছন্নতা কেটেছে। ফলে দেশের নারী সমাজ দেশের গুরুত্বপূর্ণ সেক্টরে এখন দায়িত্ব নিয়ে কাজ করার সুযোগ পাচ্ছে। নারীর এই ক্ষমতায়নের মূলে মুখ্য ভূমিকা পালন করেছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি গতকাল সোমবার সকালে করপোরেশনের টাইগারপাস অফিসের কনফারেন্স হলে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন প্রকল্প আয়োজিত আন্তর্জাতিক নারী দিবস-২০২১ এর জুম মিটিংয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন। এ সময় ২৪টি ওয়ার্ডে জুমের মাধ্যমে নারী দিবসের কর্মসূচির উদ্বোধন করেন তিনি। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মুহাম্মদ মোজাম্মেল হকের সভাপতিত্বে এতে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন নারী নেত্রী জেসমিন সুলতানা পারু, এলআইইউপিসি প্রকল্পের টাউন ম্যানাজার সরোয়ার হোসেন খাঁন, আর্থ-সামাজিক পুষ্টি বিশেষজ্ঞ মোহাম্মদ হানিফ, টাউন ফেডারেশনের চেয়ারপারসন কোহিনুর আকতার।
খুলনা ব্যুরো জানায়, খুলনায় গতকাল সোমবার জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক। মেয়র বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার জ্ঞান ও অভিজ্ঞতা দিয়ে রাষ্ট্র পরিচালনায় যে অবদান রেখেছেন তাতে সারা বিশে^ তিনি নারী নেতৃত্বের অন্যতম পথিকৃত। নারীদের স্বাবলম্বী করে গড়ে তুলতে দেশে অসংখ্য নারীবান্ধব কর্মসূচি নেয়া হয়েছে।
জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আলমগীর কবীর, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের পিপি অ্যাডভোকেট অলোকানন্দা দাস, জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান অধ্যাপিকা রুনু ইকবাল বিথার প্রমুখ। স্বাগত জানান মহিলাবিষয়ক অধিদফতরের উপপরিচালক হাসনা হেনা। খুলনা জেলা প্রশাসন, মহিলাবিষয়ক অধিদফতর এবং বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ও স্বেচ্ছাসেবী মহিলা সংগঠনগুলো যৌথভাবে এই আলোচনা সভার আয়োজন করে।
রাজশাহী ব্যুরো জানায়, রাজশাহীতে গতকাল সরকারি-বেসরকারি উদ্যোগে নারী দিবস পালিত হয়েছে। সকালে দিবসটি উপলক্ষে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। রাজশাহী জেলা প্রশাসন ও মহিলাবিষয়ক অধিদফতরের যৌথ উদ্যোগে এর আয়োজন করা হয়। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন রাজশাহী সিটি মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন। এতে মেয়র মহিলাবিষয়ক অধিদফতরের রাজশাহীর ই-প্ল্যাটফর্ম অন্নপ্রভার উদ্বোধন করেন। এরপর তিনি আগামী ১৭ মার্চ কুইজ প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়ার জন্য নগরীর ২০ জন শিক্ষার্থীর হাতে কারাগারের রোজনামচা বই তুলে দেন। এ সময় রাজশাহীর সংরক্ষিত নারী আসনের এমপি আদিবা আনজুম মিতা ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী জিনাতুন নেসা তালুকদার উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল। অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেনÑ রাজশাহী মহানগর পুলিশের উপপুলিশ কমিশনার সাজিদ হোসেন, মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি শাহীন আকতার রেণী, জাতীয় মহিলা সংস্থা রাজশাহীর সভানেত্রী মর্জিনা পারভীন, মহিলাবিষয়ক অধিদফতরের উপপরিচালক শবনম শিরীন প্রমুখ।
এ দিকে দিবসটি উপলক্ষে সোমবার সকালে রাজশাহী মহিলা পরিষদ, পরিবর্তন ও পার্টনারের উদ্যোগে একটি পদযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়। পদযাত্রাটি নগরীর সাহেববাজার জিরোপয়েন্ট থেকে শুরু হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে রাজশাহী কলেজে গিয়ে শেষ হয়। পদযাত্রায় উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক। পরে রাজশাহী কলেজ মিলনায়তনে মার্শাল আর্টের ওপর একটি ডিসপ্লে অনুষ্ঠিত হয়। এরপর সেখানে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন সিটি মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন।
চট্টগ্রাম ব্যুরো আরো জানায়, চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক ডা: শাহাদাত হোসেন বলেছেন, বর্তমান অগণতন্ত্রিক সরকারেরর আমলে নারীরা সবচেয়ে বেশি নিগৃহীত হচ্ছেন। নারীদের নির্যাতন করে কারাগারে পাঠানো হচ্ছে। গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হলে নারী অধিকার প্রতিষ্ঠিত হবে। বাংলাদেশের গণতন্ত্রের মুক্তি খালেদা জিয়ার মুক্তির সাথে জড়িত। নারী সমাজের মুক্তিও খালেদা জিয়ার মুক্তির সাথে জড়িত। তিনি গতকাল সোমবার বিকেলে দলীয় কার্যালয় নাছিমন ভবনে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে চট্টগ্রাম মহানগর মহিলা দলের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।
প্রধান বক্তা চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সদস্যসচিব আবুল হাশেম বক্কর বলেন, এই সরকারের সময় নারীরা সবচেয়ে বেশি নির্যাতিত হচ্ছে। মনোয়ারা বেগম মনির সভাপতিত্বে ও জেলী চৌধুরীর পরিচালনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেনÑ মারিয়া সেলিম, কামরুন নাহার লিজা, ফারহানা জসিম, তাসলিমা আহমদ লিমা, কানিজ ফাতেমা, জিন্নাত রাজ্জাক, জোহরা বেগম প্রমুখ।