Naya Diganta

সাতকানিয়ায় গৃহকর্মীর হাতেই নিহত হন আ’লীগ নেতা আবদুল হক

চট্টগ্রামে সাতকানিয়ার কেঁওচিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা আবদুল হক (৮৫) হত্যার রহস্য উদঘাটন করেছে সাতকানিয়া থানা পুলিশ। বেতন বৃদ্ধির বিষয়ে গালিগালাজ করায় ক্ষিপ্ত হয়ে গৃহকর্মী জমির উদ্দিন (২৯) তার গৃহকর্তা আবদুল হককে খুন্তির আঘাত ও শ্বাসরোধে হত্যা করে।
এ ঘটনায় জমিরকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। জমির উদ্দিন বাঁশখালী পৌরসভা জলদির খলিশ্বাপাড়া এলাকার হাবিবুর রহমানের ছেলে। সে বিগত ১৬ বছর ধরে নিহত আবদুল হকের বাড়িতে গৃহকর্মী হিসেবে কাজ করে আসছিল। গতকাল বুধবার দুপুরে সাতকানিয়া থানার ওসির অফিস কক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়।
সংবাদ সম্মেলনে সাতকানিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাকারিয়া রহমান, সাতকানিয়া থানার ওসি আনোয়ার হোসেন, ওসি (তদন্ত) সুজনকুমার দে, সেকেন্ড অফিসার আহসান হাবিব ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শেখ সাইফুল আলম উপস্থিত ছিলেন।
সংবাদ সম্মেলনে সাতকানিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) জাকারিয়া রহমান জানান, আমরা দ্রুততম সময়ের মধ্যে সাবেক চেয়ারম্যান আবদুল হক হত্যাকাণ্ডের রহস্য উন্মোচন করতে পেরেছি। হত্যাকারীর স্বীকারোক্তি মতে গত সোমবার ভোরে গৃৃহকর্মী জমির উদ্দিন গৃহকর্তা আবদুল হককে ঘুমন্ত অবস্থায় প্রথমে খুন্তি দিয়ে মাথায় আঘাত করে। এরপর মুখে বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করে।