Naya Diganta

আজ তৃতীয় দফা করোনা টেস্ট

নিউজিল্যান্ডে ক্রিকেটার, কোচিং-সাপোর্টিং স্টাফ আর অফিসিয়ালসদের নিজ নিজ হোটেল রুমেই কাটছে সময়। মাঠে প্র্যাকটিস করতে এখনো অনেক সময় বাকি। খোলা আকাশের প্র্যাকটিসের সুযোগ মেলেনি এখনো। গত শুক্রবার থেকে মাত্র আধঘণ্টা বাইরে হাঁটার সুযোগ পেয়েছে বাংলাদেশ দল।
নিউজিল্যান্ড পৌঁছানোর পর আজ ছয় দিনে পড়েছে সফরকারীরা। তৃতীয় দফা করোনা টেস্ট হবে আজ। সব কিছু ঠিক থাকলে সপ্তম দিন অর্থাৎ আগামীকাল থেকে পাঁচজন করে ভাগ হয়ে জিম করতে পারবে। আর অষ্টম দিন খোলা আকাশের নিচে ছোট ছোট দল করে অনুশীলনের সুযোগ মিলবে। চতুর্থ দফা কোভিড-১৯ টেস্টে সবাই নেগেটিভ হলে আগামী ১০ মার্চ থেকে একদম মুক্তভাবে চলাফেরা করতে পারবে টাইগাররা।
সফরে টিম বাংলাদেশের লিডার হয়ে যাওয়া বিসিবি সিনিয়র পরিচালক ও মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস জানিয়েছেন, সব কিছু ঠিক থাকলে আগামী ১০ মার্চ জাতীয় দলের বহর ক্রাইস্টচার্চ থেকে কুইন্সটাউনে যাবে। সেখানে চলবে পরের ধাপের অনুশীলন। সপ্তাহখানেক অনুশীলনের পর গন্তব্য ডানেডিন। ২০ মার্চ সেখানেই হবে টাইগাদের প্রথম ওয়ানডে।
জালাল ইউনুস জানান, দলের সবাই সুস্থ আছে। থাকা-খাওয়ায় কোনো অসুবিধা নেই। তবে কোয়ারেন্টিন প্রটোকলে আমরা এখনো হোটেল রুমে বন্দী। ইতিবাচক হলে আগামী ১০ মার্চ একদম ফ্রি হয়ে যাবো।’
তিনি আরো জানান, ক্রাইস্টচার্চ থেকে মাত্র ১ ঘণ্টার ফ্লাইট কুইন্সটাউন। এর আগে তৃতীয় দফা করোনা টেস্ট নেগেটিভ হলে ৪ মার্চ থেকে খোলা আকাশের নিচে বের হওয়ার অনুমতি মিলবে। তখন ৫ জনের দল সাজিয়ে জিম করা যাবে।’
পরিস্থিতি মেনে নিতে হবে বলছেন টাইগারদের ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল। ‘রুমের মধ্যে সাড়ে ২৩ ঘণ্টাই থাকতে হয়। আধাঘণ্টা আমরা বাইরে যেতে পারি। রুমের মধ্যে আমাদের সাইক্লিং করতে দেয়া হয়েছে, কিছু ব্যান্ড দেয়া হয়েছে বাংলাদেশ থেকে।’
তিনি যোগ করেন, ‘সত্যি কথা আমার সময় কাটছে নেটফ্লিক্স, অ্যামাজন প্রাইম এসব দেখে আর ঘুমাই। বাইরে যেতে হলেও ৫-৬ জনের গ্রুপ ভাগ করে দেয়া হয়েছে। অল মোস্ট ৫-৬ দিন হলো কিন্তু এখনও টিমের অনেকের সঙ্গে দেখাই হয়নি।’