Naya Diganta

উন্নতির সুযোগ দেখছেন তামিম

ব্যাট হাতে দুই ম্যাচেই রান পেয়েছেন ওয়ানডের স্বীকৃত নতুন অধিনায়ক তামিম ইকবাল। কিন্তু সহজ লক্ষ্য তাড়ায় টপঅর্ডারের অন্য দুই ব্যাটসম্যান লিটন দাস এবং নাজমুল হোসেন সুবিধা করতে পারেননি। বোলিংয়ে আবার দুই ম্যাচেই উইকেট খরায় ছিলেন রুবেল হোসেন। প্রথম ম্যাচে দুর্দান্ত বোলিং করা হাসান মাহমুদ দ্বিতীয় ম্যাচে এক উইকেট পেলেও ছিলেন খরুচে। আর ফিল্ডিংয়ে তো বরাবরই উন্নতির সুযোগ আছে টাইগার বাহিনীর।
গতকাল ঘরের ছেলে তামিম চট্টগ্রামের এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে অনুশীলন শেষে অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘তিন বিভাগেই আমাদের উন্নতির সুযোগ আছে। বোলিংয়ে আরো ভালো করা সম্ভব। ফিল্ডিংয়ে উন্নতির সুযোগ আছে অনেক। ব্যাট হাতে ভালো শুরু হলেও শেষ করে আসতে পারছে না। এগুলো নিয়ে কাজ করতে হবে। সরাসরি বিশ্বকাপে খেলতে উন্নতির বিকল্প নেই। ঘরের বাইরের সিরিজের কথাও মাথায় রাখতে হবে।’
তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের শেষটির আগে অধিনায়ক তামিম ইকবাল গুরুত্ব দিয়েই বললেন ‘উন্নতির বিকল্প নেইÑ শেষও নেই।’ । মিরপুরে সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজকে প্রথম ম্যাচে ১২২ রানে অলআউট করে ৬ উইকেটের জয় তুলে নেয় বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ম্যাচে তারা করতে পারে ১৪৮ রান। টাইগাররা ৩ উইকেট হারিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছায়। দুই ম্যাচেই ৩৫ ওভারের মধ্যে হেসে-খেলে জয়ের পরও দলের উন্নতির জায়গা দেখিয়ে দিলেন নতুন অধিনায়ক তামিম ইকবাল। জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে তুলনামূলক ব্যাটিং উইকেটে মাঠে নামার আগে দলকে করলেন সতর্ক। বললেন, ওয়েস্ট ইন্ডিজ নামটা ভয়ঙ্কর। আনুষ্ঠানিক নেতৃত্বের অভিষেক হওয়া তামিম বলেন, ‘আমরা ইতোমধ্যে সিরিজ নিশ্চিত করেছি। কিন্তু আমাদের আরো ১০ পয়েন্ট পাওয়ার সুযোগ আছে। উন্নতির এখনো অনেক জায়গা আছে। সব ক্ষেত্রে ভালো করা আমাদের খুব কম সময়ই ঘটে। এমন সুযোগকে অবহেলা করা ঠিক হবে না। যার যার জায়গা থেকে সতর্ক থাকতে হবে।’
খর্ব শক্তির দল নিয়ে বাংলাদেশ সফরে আসা ক্যারিবীয়রা তামিম-সাকিবদের সামনে দাঁড়াতেই পারেনি। শেষ ম্যাচেও ফেভারিট হিসেবেই মাঠে নামবে টাইগাররা। তবে প্রতিপক্ষকে খাটো করে দেখতে রাজি নন অধিনায়ক, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজ ভয়ঙ্কর দল। যেকোনো সময় ফর্মে ফিরতে পারে। আমাদের শেষ ম্যাচের একাদশে কিছু পরিবর্তন হতে পারে। মেহেদী হাসান মিরাজের বদলে মেহেদী হাসান, মোস্তাফিজের বদলে শরিফুল এবং রুবেলের বদলে সাইফউদ্দিন খেলতে পারেন সাগরিকায়। একটা কথা বিশ্বাস করি, দলে যেই আসুক সবাই সাফল্যের জন্য ক্ষুধার্ত।’