Naya Diganta

অভিনেতা মুজিবুর রহমান দিলু আর নেই

মঞ্চ ও টেলিভিশনের অভিনেতা, সংগঠক, বীরমুক্তিযোদ্ধা মুজিবুর রহমান দিলু আর নেই। গতকাল ভোরে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে তিনি ইন্তেকাল করেন। তার নামাজে জানাজা জোহরের পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মসজিদে অনুষ্ঠিত হয়। পরে বিকেল ৩টা থেকে ৪টা পর্যন্ত বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি প্রাঙ্গণে তার লাশ রাখা হয়। সেখানে নাট্যাঙ্গনের কলাকুশলীরা তাদের এই সহকর্মীর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। আসরের পর বনানী কবরস্থানে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তাকে দাফন করা হয়।
জানুয়ারির শুরুর দিকে ফুসফুসের সংক্রমণ নিয়ে উত্তরার একটি হাসপাতালে ভর্তি হন ৬৯ বছর বয়সী মুজিবুর রহমান দিলু। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ২০০৫ সালে গুলেন বারি সিনড্রোমে আক্রান্ত হয়ে দীর্ঘ দিন কোমায় ছিলেন দিলু। পরে তিনি সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে যাচ্ছেন।
দিলুর অভিনয় শুরু মঞ্চ থেকে। ১৯৭২ সালে তিনি বাংলাদেশ টেলিভিশনের তালিকাভুক্ত শিল্পী হন। ১৯৭৬ সাল থেকে টেলিভিশনে নিয়মিত অভিনয় শুরু করেন। বিটিভির কালজয়ী ধারাবাহিক নাটক সংশপ্তকের মালু চরিত্রে অভিনয় মুজিবুর রহমান দিলুকে ব্যাপক পরিচিতি এনে দেয়। মঞ্চে তিনি কাজ করেছেন দীর্ঘ দিন। ‘আমি গাধা বলছি’, ‘নানা রঙ্গের দিনগুলি’, ‘জনতার রঙ্গশালা’, ‘নীল পানিয়া’, ‘আরেক ফালগুন’, ‘ওমা কী তামাশা’ তার অভিনীত উল্লেখযোগ্য মঞ্চনাটক।
১৯৫২ সালের ৬ নভেম্বর চট্টগ্রামে জন্মগ্রহণ করেন অভিনেতা মুজিবুর রহমান দিলু। পেশাগত জীবনে একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্বাহী পরিচালক ছিলেন তিনি। শিশুদের সংগঠন টুনটুনির সমন্বয়ক ছিলেন তিনি। স্ত্রী রানী রহমান, দুই ছেলে অয়ন রহমান, অতুল রহমান ও এক মেয়ে তানজিলা মুজিবকে নিয়ে তিনি ঢাকার উত্তরায় থাকতেন।