Naya Diganta

সেব্রিনা ফ্লোরা স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক

স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক হিসেবে শিগগিরই যোগদান করছেন রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা: মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা। তিনি স্বাস্থ্য অধিদফতরের উন্নয়ন ও পরিকল্পনা বিভাগের বর্তমান অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা: সানিয়া তাহমিনা স্থলাভিষিক্ত হবে না। আগামী ১৮ আগস্ট সানিয়া তাহমিনা অবসরে যাবেন। গতকাল বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এ-সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। অধ্যাপক ডা. মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা ২০১৬ সালে আইইডিসিআরের পরিচালক হিসেবে নিয়োগ পান। নিয়োগ পাওয়ার পরই তাকে ডেঙ্গু, চিকুনগুনিয়া ও করোনাভাইরাসের মতো প্রাণঘাতি কিছু রোগ মোকাবেলা করতে হয়েছে।
মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা ১৯৮৩ সালে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি হন। এমবিবিএস করার পর বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানে কাজ করেন। পরে জাতীয় প্রতিষেধক ও সামাজিক চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান (নিপসম) থেকে রোগতত্ত্বে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন।
এরপর তিনি বাংলাদেশ মেডিক্যাল রিসার্চ কাউন্সিলে সহকারী পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এখান থেকে তিনি নিপসমে সহকারী অধ্যাপক হিসেবে যোগদান করেন। পরে ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আর্সেনিকের ওপর পিএইচডি অর্জন করেন। তিনি ইন্টারন্যাশনাল অ্যাসোসিয়েশন অব দ্য ন্যাশনাল পাবলিক হেলথ ইনস্টিটিউটের সহসভাপতি হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন।
এ দিকে অতিরিক্ত মহাপরিচালক হিসেবে নিয়োগ পাওয়ায় স্বাস্থ্য অধিদফতরসহ স্বাস্থ্য বিভাগে অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, সরকারি সব ধরনের নিয়মনীতি উপেক্ষা করে তাকে এই পদে পদায়ন করা হয়েছে। তারা বলেন, দি বিসিএস রিক্রুটমেন্ট রুলস ১৯৮১ এবং দি বিসিএস এক্সমিনেশন ফর প্রমোশন রুলস ১৯৮৬, এজ এমেন্ডমেন্ট আপটু আগস্ট ১৯৯৯ অনুযায়ী কাউকে অতিরিক্ত মহাপরিচালক হতে হলে, তাকে অবশ্যই কমপক্ষে ১৮ বছরের চাকরির অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। এ ছাড়া অর্থ ও হিসাব শাখার পরিচালক, চিকিৎসা শিক্ষা জনশক্তি উন্নয়ন, প্রাইমারি হেলথ কেয়ার, রোগনিয়ন্ত্রণ, কেন্দ্রীয় ঔষধাগার, আইপিএইচএন, আইপিএইচ, মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল এই প্রতিষ্ঠানগুলো যেকোনো একটির পরিচালক হিসেবে কমপক্ষে দুই বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। এ ছাড়া মেডিক্যাল কলেজ, নিপসম, এনআইসিভিডি, আরআইএইচডি, এনআইও, আইডিসিএইচ, অথবা মেডিক্যাল কলেজের প্রিন্সিপাল বা ভাইস প্রিন্সিপাল হিসেবে দায়িত্ব পালনের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। অথবা নিপসমের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা, অতিরিক্ত পরিচালক হিসেবে নিপসমে দায়িত্ব পালনের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। কিন্তু এর কোনো অভিজ্ঞতাই তার ছিল না।
অধিদফতরের সিনিয়র ও জুনিয়র একাধিক কর্মকর্তা বলেন, একজন কর্মকর্তা যে বিসিএস ক্যাডার অফিসার নন, একজন নন ক্যাডার অফিসার হিসেবে কিভাবে অতিরিক্ত মহাপরিচালক হন? দি বিসিএস রিক্রুটমেন্ট রুলস ১৯৮১ অনুযায়ী সম্পূর্ণ অবৈধ।
সম্প্রতি সরকারি নিয়মনীতির বাইরে গিয়ে, স্বাস্থ্য অধিদফতরকে পাশ কাটিয়ে স্বল্পমেয়াদি প্রকল্পে নিয়োগপ্রাপ্ত অর্ধশত মেডিক্যাল টেকনোলজিস্টের চাকরি রাষ্ট্রীয়করণ করেন। সব মিলিয়ে এই নিয়োগে স্বাস্থ্য অধিদফতরে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।