Naya Diganta
জরুরি ভিত্তিতে সরবরাহের দাবি

রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে হাই ফ্লো নেজাল ক্যানুলা ও অক্সিজেন মাস্ক সঙ্কট

জরুরি ভিত্তিতে সরবরাহের দাবি

রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে করোনা রোগীদের জন্য অতিব জরুরি হাই ফ্লো নেজাল ক্যানুলা ও অক্সিজেন মাস্কসহ বিভিন্ন উপকরণের তীব্র সঙ্কট বিরাজ করছে। এই অবস্থায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ স্বাস্থ্য অধিদফতরে চিঠি পাঠিয়েও কোনো কাজ হচ্ছে না। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটির সাথে জরুরি বৈঠক করে সঙ্কট উত্তরণে সরকারের কাছে উপকরণ সরবরাহের দাবি জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা।
হাসপাতালের পরিচালক ডা: ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী জানান, করোনা রোগীদের জন্য অত্যাবশ্যকীয় হাই ফ্লো নেজাল ক্যানুলা ও অক্সিজেন মাস্কসহ করোনা রোগীদের এবং চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের বিভিন্ন উপকরণ সঙ্কট বিরাজ করছে। বিষয়টি জানিয়ে আমরা স্বাস্থ্য অধিদফতরে চাহিদা পত্র পাঠিয়েছি। জরুরি ভিত্তিতে এসব সরবরাহ না করলে করোনা রোগীদের চিকিৎসা কার্যক্রম পরিচালনা করা দুরূহ হয়ে যাবে। সঙ্কট সত্ত্বেও চিকিৎসকরা তাদের দায়িত্ব পালন করছেন।
রংপুর মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ এবং আরটি পিসিআর ল্যাবের প্রধান ডা: এ কে এম নুরুন্নবী চৌধুরী লাইজু বলেন, রংপুরে ক্রমাগতভাবে বাড়ছে করোনা রোগীর সংখ্যা। সে কারণে আমরা সংগৃহীত নমুনা ঢাকায় পাঠিয়েও শেষ করতে পারছি না। কারণ মাত্র ১৮৮টি নমুনা পরীক্ষা করা সম্ভব। কিন্তু প্রতিদিন সংগ্রহ হচ্ছে ডাবলেরও বেশি। এই অবস্থায় আরো একটি পিসিআর ল্যাব স্থাপন করা না হলে আমরা কোনোভাবেই সঠিক সময়ে করোনা পরীক্ষা করাতে পারব না। বিষয়টি জানিয়ে আমরা স্বাস্থ্য বিভাগে চিঠি দিয়েছি। জরুরি ভিত্তিতে এই ল্যাব স্থাপন জরুরি।
উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে গতকাল শনিবার দুপুরে হাসাপাতালে জরুরি বৈঠক হয়। হাসপাতাল পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ মসিউর রহমান রাঙ্গার সভাপতিত্বে এ সময় অন্যান্যেও মধ্যে উপস্থিতি ছিলেনÑ মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ ডা: নুরুন্নবী চৌধুরী লাইজু, হাসপাতালের পরিচালক ডা: ফরিদ উদ্দিন চৌধুরীসহ অন্যান্যরা ।
বৈঠক শেষে রাঙ্গা এমপি বলেন, মৃত্যুর হার কম হলেও রংপুরে করোনা রোগী ক্রমাগত বাড়ছে, পাশাপাশি হাসপাতালে বিভিন্ন উপকরণের সঙ্কট দেখা দিয়েছে। এই অবস্থায় করোনা প্রতিরোধে উপকরণ জরুরি ভিত্তিতে সরবরাহ হওয়া প্রয়োজন।