Naya Diganta

বরিশাল পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রকৌশলীর ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধ পরিদর্শন

আমফানে ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধ নিয়ে গত ২ জুন দৈনিক নয়া দিগন্তের ৮ম পাতায় বর্ষার আগেই বরিশাল অঞ্চলে ভাঙন শুরু শিরোনামে সংবাদ প্রকাশের পর বরিশাল পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান প্রকৌশলী মো: হারুন-অর রশিদ শুক্রবার দুপুরে ২৯ কিলোমিটার ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধ এলাকা পরিদর্শন করেন।

এ সময় ঝালকাঠির কাঠালিয়া উপজেলার চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমাদুল হক মনির বলেন, প্রকাশিত সংবাদটি পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক শামীম, উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম ও সংসদ সদস্য বজলুল হক হারুনের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। পরবর্তীতে তাদের নির্দেশনায় গত ৩ জুন বিকেলে উপজেলার আমুয়া ইউনিয়নের লঞ্চঘাট এলাকা থেকে আওরাবুনিয়ার জাঙ্গালিয়া পর্যন্ত ট্রলারযোগে ধ্বসে যাওয়া বাঁধ পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান প্রকৌশলীসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা সরেজমিনে পরিদর্শন করেছেন।

এ সময় এলাকাবাসী দ্রুততম সময়ের মধ্যে টেকসই স্থায়ী বেড়িবাঁধ নির্মাণের জন্য প্রধান প্রকৌশলীর কাছে জোর দাবি করেন। উপজেলা চেয়ারম্যান আরো জানান, ঝড় জলোচ্ছাসসহ প্রতিটি দুর্যোগে বাঁধটি ধ্বসে পড়লেও আজও সংস্কারের জন্য কার্যকরী কোনো উদ্যোগ নেয়া হয়নি। এজন্য দীর্ঘদিন থেকে সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে একাধিকবার লিখিত আবেদন করেও কোনো সুফল মেলেনি।

তিনি আরো জানান, সর্বশেষ ঘূর্ণিঝড় আমফানে বাঁধটি ধ্বসে পড়ে নিন্মাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। এতে করে মাছের ঘের থেকে লাখ লাখ টাকার মাছ ভেসে গেছে। পাশাপাশি বিষখালী নদীর ভাঙনে বিধ্বস্ত হচ্ছে বাড়ি-ঘরসহ আবাদী জমি।

শুক্রবার দুপুরে মোবাইল ফোনে বরিশাল পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান প্রকৌশলী মো: হারুন-অর রশিদ বলেন, আমফানের আঘাতে বিষখালী নদীর তীরবর্তী বেড়িবাঁধ নদী গর্ভে বিলীন হয়েছে। যত দ্রুত সম্ভব কাঠালিয়া উপজেলার ২৯ কিলোমিটার পূর্ণাঙ্গ টেকসই বাঁধ নির্মাণের কাজ শুরু করা হবে।

বজলুল হক হারুন এমপি বলেন, কাঠালিয়াবাসীর সাথে আমারও প্রাণের দাবি বেড়িবাঁধটি পূর্ণনির্মাণ করার। এজন্য আমি সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়সহ কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলেছি। খুব শীঘ্রই বেড়িবাঁধটি পূর্ণনির্মাণের কাজ শুরু করা হবে বলে আশ্বাস পাওয়া গেছে।