Naya Diganta

ফ্যানস গ্রুপের আয়োজনে ভক্তদের সাথে সারা দিন

জিয়াউল ফারুক অপূর্ব, টিভি নাটকের এই সময়ের অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেতা। যে কারণে বলা যায় বছরের বিশেষ বিশেষ দিন আর বিশেষ উৎসবের দিন ছাড়া বছরের পুরোটা সময়ই অপূর্বকে ব্যস্ত থাকতে হয় নাটক বা টেলিফিল্মের শুটিংয়ের কাজে। বেশ কিছুদিন আগে ফেসবুকে অপূর্বর ভক্তদের উদ্যোগেই গঠিত হয়েছে ‘জিয়াউল ফারুক অপূর্ব অফিসিয়াল ফ্যানস গ্রুপ’। এই গ্রুপেরই উদ্যোগে প্রথমবারের মতো রাজধানীর উত্তরার একটি রেস্তোরাঁয় অপূর্বর উপস্থিতিতেই একটি গেটটুগেদার অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। গত ২৩ ফেব্রুয়ারি দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে রাজধানীতে আগত এই অনুষ্ঠানে শতাধিক ভক্তের সাথে একান্তে সময় কাটান অপূর্ব। দুপুরের ভক্তদের মধ্যে উপস্থিত হওয়ার পর সব ভক্তের মধ্যে এক বিরামহীন উচ্ছ্বাস ছড়িয়ে পড়ে। অপূর্বকে খুব কাছে পেয়ে তারা যেন আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েছিল। অনুষ্ঠানের আয়োজক মাহবুবুর রহমান, মাসরিকুল আলম, বায়েজিদ নীরব, শাহ্ জালাল, মাহিম ও মোশাররফকে অপূর্বকে ঘিরে আয়োজিত এই অনুষ্ঠান শৃঙ্খলার মধ্যদিয়ে সম্পন্ন করতে বেশ কষ্ট হয়েছে। বলা যায় প্রতি মিনিটেই ভক্তদের সেলফিতে বন্দী হতে হয়েছে অপূর্বকে। তারপরও অনুষ্ঠান বেশ শৃঙ্খলার মধ্যদিয়ে সম্পন্ন করতে হয়েছে ফ্যানস গ্রুপকে। অনুষ্ঠানের শুরুতেই অপূর্বর উপস্থিতিতে বিশেষ অতিথিদের বরণ করে নেয়া হয়। ফ্যানস গ্রুপের উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য নিয়ে কথা বলেন অপূর্ব। মধ্যাহ্ন ভোজের বিরতির পর অপূর্ব সবাইকে নিয়ে কেক কাটেন। একে একে সবাইকে কেক খাইয়ে দেন অপূর্ব। ফ্যানস গ্রুপের সবাইকে একে একে পরিচয় করিয়ে দেয়ার পাশাপাশি লটারির আয়োজন করা হয়। লটারিতে বিজয়ী প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় জনকে অপূর্বর পক্ষ থেকে বিশেষভাবে পুরস্কৃত করা হয়। অনুষ্ঠানের ফাঁকে ফাঁকে ভক্তদের সাথে ছবি তোলেন অপূর্ব। অপূর্বর সাথে ছবি তোলাটাই ছিল সবার অনেক দিনের আশা। তাই অপূর্বও কাউকে নিরাশ করেননি। টানা বেশ কয়েক ঘণ্টার অনুষ্ঠানে বেশ ধৈর্য নিয়ে অপূর্ব উপভোগ করেন। এক সময় মাইক্রোফোন হাতে নিয়ে অপূর্ব গেয়ে ওঠেন ‘পুরনো সেই দিনের কথা’ গানটি। অবশ্য শুরুতে গুনগুনিয়ে গানটি গাইলেও পরবর্তীতে অপূর্বের সাথে কণ্ঠ মিলিয়ে সবাই একে একে গেয়ে ওঠেন। অনুষ্ঠানের প্রায় শেষের দিকে এসে উপস্থিত হন অপূর্বর বাবা ওমর ফারুক ও অপূর্বর একমাত্র ছেলে আয়াশ। আর তাতে যেন আরো অনেক বেশি প্রাণবন্ত হয়ে ওঠে ফ্যানস গ্রুপ আয়োজিত সেদিনের অনুষ্ঠান। একজন ভক্ত অপূর্বকে তারই পরিবারের ছবি ফ্রেমে বন্দী করে গিফট করেন।