Naya Diganta
আ র বে র রূ প ক থা  

সভাকবি বানর

আ র বে র রূ প ক থা  

(গতদিনের পর)
বানরটি এখন বনবাদাড়ে ঘোরে, রাতে গাছের শাখায় ঘুমায়। গাছের ফল-ফলালি খায়। কোনো মানুষের তাড়া খেলে পালিয়ে যায়। সে নিজেও অন্য পশুদের দেখলে তাড়া করে। বেশ আনন্দেই কাটছে তার জীবন।
এভাবে এক বছর যায়, দুই বছর যায়। তৃতীয় বছরের শুরু থেকে স্মৃতি তার ধীরে ধীরে ফিরতে থাকে। এখন সে কিছুটা বুঝতে পারে, আসলে সে তো বানর নয়। সে অন্য কিছু। হয়তো মানুষ ছিল কোনো কালে। কিন্তু মুখে তার ভাষা নেই। বানরটি বুঝতে পারে, মানুষের মতোই জ্ঞান-বুদ্ধি কিছু কিছু আছে তার, কিন্তু বলার ক্ষমতা নেই।
একদিন এক সাগর তীরে হেঁটে বেড়াচ্ছিল সে। পাহাড়ের কোল ঘেঁষে সাগর মোহনা। তীরে পাহাড়ের উঁচুতে বড় বড় গাছ নুয়ে পড়েছে সাগরে। বানরটি দেখে একটি জাহাজ তীরে নোঙর করা। কী মনে করে যেন বানরটি বড় এক গাছে উঠে যায়। গাছটি নুয়ে পড়েছে সাগরে, ঠিক জাহাজের উপরেই। মগডালে উঠে বানরটি লাফ দিয়ে নেমে আসে ওই জাহাজের পাটাতনে। আর অমনি হৈচৈ পড়ে যায় জাহাজে। (চলবে)