Naya Diganta

নিজের বিয়ের দাওয়াত দিতে গিয়ে লাশ হয়ে ফিললেন প্রবাসী

চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলার খরনা গ্রামের চৌধুরী বাড়ির ছেলে রায়হানুল ইসলাম চৌধুরী সবুজের(২৬) বিয়ে ঠিক ছিল আগামী শনিবার। তাই দাওয়াত দেওয়ার জন্য ঘর থেকে বের হয়েছিলেন। কিন্তু লাশ হয়ে ফিরতে হলো তাকে। আজ রোববার বাদ আছর জানাজা নামাজের পরে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। 

গত ১৭ জানুয়ারী শুক্রবার নগরীতে আত্মীয়স্বজনদের নিজের বিয়ের দাওয়াত দিতে গিয়ে রাত পৌনে ৯টা থেকে তার মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায় এরপর থেকে তিনি নিখোঁজ হওয়ার পরে পরিবারের পক্ষ থেকে বাকলিয়া থানায় বিষয়টি লিখিতভাবে জানানো হয়। নিহত সজিব চৌধুরী বাড়ির আতাউর রহমান চৌধুরীর ৬ ছেলেমেয়ের মধ্যে সবার বড় ছিল।

এদিকে ১৮ জানুয়ারী বেলা সাড়ে ৩টায় কর্ণফূলী থানার শিকলবাহা সরওয়ার্দি জামে মসজিদের কবরস্থানের পাশ থেকে তার লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য প্রেরণ করা হয়। ময়না তদন্তের পর বিকালে তার লাশ গ্রামের বাড়িতে পৌঁছলে এক হদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়।

নিহত সজিবের চাচা পটিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা শহিদুল আলী মনজু ও তার চাচাত ভাই মাওলানা আবদুর রহিম বলেন, কয়েক দিন আগে তার আকদ সম্পন্ন হয়। বিয়ে হওয়ার কথা আগামী শনিবার। তাই দাওয়াত দেওয়ার জন্য ঘর থেকে বের হয়ে আজ সে লাশ হয়ে ফিরলো।

এব্যপারে নিহত সজিবের বাবা কর্ণফূলী থানায় অজ্ঞাতনামা কয়েকজনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বলেন উপ-পুলিশ পরিদর্শক রফিকুল ইসলাম দৈনিক নয়া দিগন্তকে বলেন, লাশ উদ্ধারের সময় লাশের গায়ে আঘাতের কোন দাগ ছিল না। ময়না তদন্তের রিপোর্ট পাওয়া গেলে হত্যাকাণ্ডের বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যাবে।