১০ এপ্রিল ২০২১
`

জামালপুরে প্রেমের টানে বাড়ি ছাড়লো কিশোরী, অতঃপর উদ্ধার হলো লাশ

জামালপুরে প্রেমের টানে বাড়ি ছাড়লো কিশোরী, অতঃপর উদ্ধার হলো লাশ - ফাইল ছবি

জামালপুরে এক কিশোরীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তার নাম সামিয়া আক্তার। তিনি শহরের পাথালিয়া বকুলতলা এলাকার আব্দুল সফুরের মেয়ে এবং স্থানীয় হযরত শাহজামাল র: উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী।

মঙ্গলবার সকালে শহরের মনিরাজপুর মোড়ের পাশে একটি বাগান থেকে তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। সাত মাস আগে তিনি প্রেমের টানে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান। পরে প্রেমিকের কাছ থেকে পুলিশ কিশোরীকে উদ্ধার করে পরিবারের কাছে হন্তান্তর করেছিল। এরপর আবারো তিনি বাড়ি থেকে পালিয়ে গিয়ে শহরের মুন্সিপাড়া এলাকার নূরুল ইসলামের বাড়িতে থাকতেন।

ওই কিশোরীর মা জয়নব বেগম সাংবাদিকদের জানান, ‘সাত মাস আগে শহরের কাচারিপাড়া এলাকার মৃত দুলাল মিয়ার ছেলে জনির সাথে সে পালিয়ে যায়। আমরা থানায় অভিযোগ দিলে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে আমাদের কাছে হস্তান্তর করেছিল। কয়েক দিন পর সে আবারো পালিয়ে যায়। আমরা খোঁজ-খবর নিয়ে জানি, সে শহরের মুন্সিপাড়া এলাকার নূরুল ইসলামের বাড়িতে আছে। তাকে নিয়ে আসতে চাইলে সে আসেনি। নূরুল ইসলামের স্ত্রী সুজেদা বেগম তাকে মেয়ে বানিয়ে ওই বাড়িতেই রেখে দেন। জনিও সেই বাড়িতে যাতায়াত করতেন। তিন দিন আগে আমি ওই বাড়িতে গিয়েছিলাম। সামিয়া আমার কাছে দুই লাখ টাকা চায় এবং জনির সাথেই সে থাকবে বলে জানায়। আমি তাকে বুঝিয়ে বাড়িতে আসি।’

এ ব্যাপারে নূরুল ইসলাম জানান, ‘সাত মাস আগে সামিয়াকে আমার বাড়িতে আশ্রয় দেই। সে বলেছে, তার পরিবার তাকে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে। সামিয়া আমাকে বাবা ও আমার স্ত্রীকে মা ডাকত। সামিয়ার মা জয়নব আমাদের বাড়িতে মাঝেমধ্যে এসে তার (সামিয়া) খোঁজ-খবর নিতেন।’

নূরুল ইসলামের স্ত্রী সুজেদা বেগম জানান, ‘সামিয়া সোমবার বিকেলে ওষুধ কেনার জন্য বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফিরেনি। আমরা অনেক খোঁজা-খুঁজি করেও তার কোনো সন্ধান পাইনি। তার বাড়িতে ফোন করে আমরা বিষয়টি জানিয়েছি। মঙ্গলবার দুপুরে বাড়িতে পুলিশ আসার পর জেনেছি যে, সামিয়ার আত্মহত্যা করেছে।’

সামিয়ার প্রেমিক জনির বড় ভাই টনি জানান, ‘জনি পেশায় ট্রাক ড্রাইভার। জনির সাথে প্রেমের সম্পর্কের দাবি নিয়ে সাত মাস আগে সামিয়া আমাদের বাড়িতে আসে। জনিকে সে বিয়ে করতে চায়। আমরা তার পরিবারের সাথে যোগাযোগ করি এবং পুলিশে খবর দেই। পুলিশ সামিয়াকে উদ্ধার করে তার বাড়িতে পৌঁছে দেয়। এরপর জনির সাথে তার কোনো সম্পর্ক ছিল না বলে আমি জানি।’

এ ব্যাপারে জামালপুর সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রেজাউল ইসলাম খান সাংবাদিকদের জানান, তদন্ত শেষে মৃত্যুর সঠিক রহস্য উদঘাটন করা সম্ভব হবে।



আরো সংবাদ


লক খোলা লকডাউন, রোববার নতুন নির্দেশনা (১৫৪৬৩)র‌্যাবের ৪ সদস্যকে গ্রেফতার করলো পুলিশ (১৪৫৪৯)১৪ এপ্রিল থেকে জরুরি সেবার প্রতিষ্ঠান ছাড়া সব বন্ধ : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী (১২০৮১)ষড়যন্ত্রমূলক মামলা প্রত্যাহার করুন : বাবুনগরী (৮৫১১)১৪ এপ্রিল থেকে সর্বাত্মক লকডাউনের চিন্তা সরকারের : কাদের (৮৩৮২)এবার টার্গেট জ্ঞানবাপী মসজিদ! (৭১৪৪)আপনি যে পতনের দ্বারপ্রান্তে তা বুঝবেন কিভাবে? (৫৪২১)মিয়ানমারে নিরাপত্তা বাহিনীর বিরুদ্ধে বন্দুক নিয়ে লড়ছেন বিক্ষোভকারীরা (৪৫৯৮)হিমছড়িতে ভেসে এলো বিশাল তিমি (৪৪৫৭)বিজেপির নির্বাচনী গানে বাংলাদেশে ইসলামপন্থীদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষের ছবি (৪২৪৬)