০২ ডিসেম্বর ২০২০

দ্বিতীয় স্ত্রীকে ঘরে আনার প্রতিবাদ করায় প্রথম স্ত্রীর মুখে সিগারেটের ছ্যাঁকা


নেত্রকোণার বারহাট্টা উপজেলায় দ্বিতীয় স্ত্রীকে বাড়িতে তোলার প্রতিবাদ করায় স্বামী প্রথম স্ত্রীর মুখে সিগারেটের ছ্যাঁকা দিয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযুক্ত স্বামীর নাম হাজিবুল। মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার সিংধা ইউনিয়নের মল্লিকপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পরে প্রতিবেশীরা ভূক্তভোগী ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করে বারহাট্টা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান।

ভুক্তভোগী গৃহবধূ জানান, ‘তার স্বামী হাজিবুল প্রথমে আমার বড় বোন নাসিমাকে বিয়ে করেন। তাদের দাম্পত্য জীবনে তিনটি সন্তান রেখে বড় বোন মারা যান। পরে বোনের সন্তানদের কথা বিবেচনা করে ১১ বছর আগে বোন জামাইয়ের সাথে অভিভাবকরা আমাকে বিয়ে দেন। তারপর থেকেই স্বামী কাজের জন্য ঢাকা চলে যান। আমার তেমন খোঁজখবর নিতেন না তিনি। যে কারণে আমাকে অধিকাংশ সময় বাবার বাড়িতে থাকতে হতো। মাঝে মধ্যে বাড়ি আসতেন তিনি। এর মধ্যে গত ৯ অক্টোবর আমি একটি কন্যা সন্তান প্রসব করি। সিজারের খরচপাতিও বাবার বাড়ির লোকজন বহন করতে হয়েছে। হাজিবুল ঢাকায় নাকি গার্মেন্টসে কাজ করেন। কয়েক দিন হয় বাড়ি এসেছেন। কিন্তু সাথে একটি মেয়ে নিয়ে আসেন। জিজ্ঞেস করলে জানান নতুন বউ। এ নিয়ে প্রতিবাদ করায় আমার উপর শুরু করে নির্মম নির্যাতন। মঙ্গলবার সকালে আমাকে কিল-ঘুষি দিয়ে মারধর শুরু করেন। একপর্যায়ে সিজারের সেলাই করা পেটে লাথি মারলে রক্তক্ষরণ হয়। তারপর আবারো সিগারেট দিয়ে আমার মুখে ছ্যাঁকা দেন। আমার চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে আমাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান।’

ওই গৃহবধূর ফুফাতো ভাই নুরুজ্জামান কাঞ্চন জানান, বোনকে হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। চিকিৎসা শেষে বাসায় নিয়ে আসা হয়েছে।

বারহাট্টা সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাইদুর রহমান জানান, বিষয়টি তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আরো সংবাদ