২৯ অক্টোবর ২০২০

চলন্ত ট্রেনের ছাদ থেকে যুবককে ফেলে হত্যা


ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে চলন্ত ট্রেনের ছাদ থেকে ফেলে দিয়ে এক যুবককে (২৫) হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। নিহত যুবকের পরিচয় জানা যায়নি। মঙ্গলবার সকালে রেলওয়ে পুলিশ গফরগাঁও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে ওই যুবকের লাশ উদ্ধার করে। পরে রেলওয়ে পুলিশ লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

গফরগাঁও রেলওয়ে স্টেশন কর্তৃপক্ষ, রেলওয়ে পুলিশ, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, সোমবার রাত সোয়া আটটার দিকে মোহনগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী মহুয়া এক্সপ্রেস ট্রেনটি গফরগাঁও রেলওয়ে স্টেশনে যাত্রাবিরতি করে। যাত্রাবিরতি শেষে গফরগাঁও রেলওয়ে স্টেশন থেকে ট্রেনটি ছাড়ার পর ১০০ গজ দুরে রেলওয়ে গোরস্থানের সামনে চলন্ত ট্রেনের ছাদ থেকে ওই যুবককে ফেলে দেয় একদল দুর্বৃত্ত। গুরুতর আহত ওই যুবক প্রায় আধঘণ্টা রেললাইনের ওপর পড়েছিল।

খবর পেয়েও রেলওয়ে স্টেশন কিংবা রেলওয়ে পুলিশের সদস্যরা তার সাহায্যে এগিয়ে আসেনি। পরে পাশের জামিয়া মদিনাতুল উলুম আকবর হোসেন কওমী মাদরাসা ও এতিমখানার ছাত্ররা আহত ওই যুবককে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক ওই যুবককে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। যুবকের সাথে কেউ না থাকায় কেউ তাকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করেনি। প্রায় বিনা চিকিৎসায় রাত একটার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ওই যুবকের মৃত্যু হয়।

গফরগাঁও রেলওয়ে পুলিশ ফাড়িঁর ইনচার্জ মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ মিয়া জানান, নিহত যুবক টোকাই হতে পারে। পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা চলছে।

উল্লেখ্য, ২০১৮ ও ২০১৯ সালে এই ঢাকা-ময়মনসিংহ রেলপথে কাওরাঈদ, মশাখালী, গফরগাঁও, ধলা ও বালিপাড়া এলাকায় চলন্ত ট্রেনের ছাদে ছিনতাই, ছিনতাই শেষে চলন্ত ট্রেনের ছাদ থেকে ফেলে দিয়ে যাত্রীদের হত্যা করার একাধিক ঘটনা ঘটেছে।


আরো সংবাদ