২৯ মে ২০২০

মাদারগঞ্জ হাসপাতালের ফার্মাসিস্ট করোনায় আক্রান্ত, জামালপুর লকডাউন

-

জামালপুরে আরো একজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। নমুনা পরীক্ষার প্রতিবেদনে জেলার মাদারগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ফার্মাসিস্টের দেহে করোনাভাইরাস পজিটিভ এসেছে। বুধবার রাতে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন জামালপুরের সিভিল সার্জন ডাক্তার আবু সাঈদ মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান। ফার্মাসিস্টসহ এ পর্যন্ত জামালপুরে দু’জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় পুরো জেলা লকডাউন ঘোষণা করেছেন জেলা প্রশাসক
মোহাম্মদ এনামুল হক।

এদিকে মাদারগঞ্জ উপজেলার আদারভিটা ইউনিয়নের বিন্নাফৈর গ্রামের ৬৩ বছরের এক বৃদ্ধ সর্দি-জ্বর ও কাশিতে মারা গেলে ওই গ্রামের লোকজন করোনাভাইরাসের সন্দেহে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। পরে স্থানীয়দের দাবির মুখে তার নমুনা সংগ্রহ করে স্বাস্থ্য বিভাগ। নমুনা পরীক্ষার প্রতিবেদন না আসা পর্যন্ত ওই ব্যক্তির বাড়িটি লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে বলে জানান মাদারগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, করোনাভাইরাস সংক্রমণের বিভিন্ন উপসর্গ দেখা দেয়ায় গত রোববার মাদারগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ওই ফার্মাসিস্টের নমুনা সংগ্রহ করে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়েছিল। করোনা শনাক্ত হওয়া ওই ফার্মাসিস্ট টানা ১০ বছর ধরে মাদারগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত আছেন। তার বাড়ি টাঙ্গাইলের গোপালপুর উপজেলায়।

মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি কর্মস্থলেই আছি। গত রোববার যখন আমার নমুনা নেয়া হয়, সেদিন আমার শরীরে জ্বর ও কাশির উপসর্গ ছিল। বুধবার করোনা শনাক্ত হওয়ার কথা আমাকে জানানো হয়। কিন্তু আজ (বুধবার) আমার শরীরে জ্বর ও অন্যান্য কোনো উপসর্গ নেই। হয়তো নীরবে করোনাভাইরাস আমার শরীরে আছে।

তিনি আরো জানান, গত বৃহস্পতিবার তিনি গোপালপুরের গোহাট্রায় তার গ্রামের বাড়িতে গিয়েছিলেন। ওই বাড়িতে ঢাকা থেকে তাদের কয়েকজন আত্মীয় বেড়াতে এসেছিলেন। গত শুক্রবার তিনি নিজ গ্রামের মসজিদে জুমার নামাজও পড়েন।

এ ব্যাপারে সিভিল সার্জন ডাক্তার আবু সাঈদ মো: মাহবুবুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, মাদারগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ফার্মাসিস্টের নমুনা পরীক্ষায় করোনাভাইরাস পজিটিভ প্রতিবেদন পেয়েছি। তাকে চিকিৎসার জন্য জামালপুর সদর হাসপাতালের করোনা আইসোলেশন সেন্টারে আনার জন্য একটি মেডিক্যাল টিম মাদারগঞ্জে পৌঁছে কাজ করছেন।

এদিকে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ এনামুল হক সাংবাদিকদের জানান, দু’দিন আগে রোববার জেলার মেলান্দহ উপজেলার ঘোষেরপাড়া ইউনিয়নের বীর ঘোষেরপাড়া গ্রামে এক যুবক করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। বর্তমানে তিনি জামালপুরে করোনা আইসোলেশন সেন্টারে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় দু’জনের করোনা শনাক্ত হলো। সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় জামালপুর জেলাকে আজ রাতে (বুধবার) লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত লকডাউন বহাল থাকবে।


আরো সংবাদ