৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ন ১৪২৯, ৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

সাড়া ফেলেছে ইসলামি নাশিদ প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান 'তারানা রেকর্ড'

সাড়া ফেলেছে ইসলামি নাশিদ প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান 'তারানা রেকর্ড' - ছবি : সংগ্রহ

মানসম্মত ইসলামি সঙ্গীত রেকর্ডের হাতে গোণা যে কয়টি প্রতিষ্ঠান রয়েছে, তারানা রেকর্ড সেগুলোর একটি। সংখ্যা কম হলেও সঙ্গীতের অডিও-ভিডিও মান সবসময়ই ধরে রাখার চেষ্টা করে যাচ্ছে তারানা। এ কারণেই তারানা রেকর্ড দেশের বৃহৎ একটি জনগোষ্ঠীকে তাদের প্রতি ঝোঁকাতে পেরেছে।

তারানা রেকর্ডের ওনার জনপ্রিয় ইসলামি সঙ্গীতশিল্পী আবু রায়হান বলেন, গত ১০ বছর আগেও ইসলামি সঙ্গীত রেকর্ডের মান খুব বেশি ভালো ছিল না। এখন আমরা সঙ্গীতের কথার পাশাপাশি রেকর্ডের মান যেন আন্তর্জাতিক পর্যায়ের হয় ওই চেষ্টাই করছি।

আবু রায়হান বলেন, মানুষ অনৈসলামিক গান শোনায় অভ্যস্ত। তাদেরকে ইসলামিক গানের প্রতি আগ্রহ তৈরি করতে হলে বৈধ যত পথ আছে, সেগুলো অবলম্বন করতে আমি কোনো সমস্যা দেখি না। আমরা তা-ই করছি।

তারানা রেকর্ডের আরেক ওনার হুসাইন আদনান বলেন, মানুষ এখন ইসলামি সঙ্গীতের প্রতি ঝুঁকছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লক্ষ্য করলে দেখা যায়, সাধারণ মানের একটি ইসলামি সঙ্গীতও অসংখ্য মানুষ দেখছে। দর্শকদের হৃদয় স্পর্শ করছে ইসলামি গানগুলো। এটি অবশ্যই আশাজাগানিয়া কথা। কিন্তু সমাজের সর্বস্তরে ইসলামি সংস্কৃতি ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে দিতে যত সংগঠন বা প্রতিষ্ঠান দরকার, তা কিন্তু এখনো তৈরি হয়নি। এক্ষেত্রে আমাদের স্টুডিও ভালো একটি উপযোগী কাজ করছে বলে আমি বিশ্বাস করি৷

আমরা অনেক আশাবাদী যে, খুব অল্প সময়ে আমরা অনেকটা পথ অতিক্রম করতে পেরেছি। তারানা রেকর্ডের ইউটিউব চ্যানেলে ইতোমধ্যেই দুই লাখের বেশি মানুষ যুক্ত হয়েছেন। আমরা ইসলামি সঙ্গীত প্রেমিদেরকে নিয়ে আরো বহুদূর পথ চলতে চাই বলে উল্লেখ করেন তারানা রেকর্ডের আরেক ওনার আইনুল ইসলাম।


আরো সংবাদ


premium cement