০৭ জুলাই ২০২০

চারপাশে আসলে কোনো সুখ নেই : কনা

দিলশান নাহার কনা - ছবি : সংগৃহীত

সরকারি ঘোষণা অনুযায়ী স্কুল-কলেজ, অফিস-আদালত বন্ধ হয়েছে ২৫ মার্চ থেকে। আর সঙ্গীত শিল্পী দিলশান নাহার কনা হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন ২০ মার্চ থেকে। এই সময়ের মধ্যে জীবনকে নতুন করে বুঝতে শিখেছেন তিনি। দল বেঁধে আড্ডা দেয়ার চেয়ে ঘরে বাবা-মা’র সেবা করায় বেশি আনন্দ পান তিনি। কনা বলেন, আমি কিন্তু সম্প্রতি সময়ে বিদেশে সফর করিনি। তাও হোম কোয়ারেন্টিনে গিয়েছি বিবেকের তারনায়। কারণয় সঙ্গীত শিল্পী হিসেবে অনেক জায়গায় স্টেজ শো করতে হয়। ওই সময়টায় যদি কোনোভাবে আমি সংক্রমিত হয়ে থাকি, তাহলে তা আমার মাধ্যমে যেন অন্য কারো শরীরে প্রবেশ না করে সে জন্য সেচ্ছায় ঘরবন্দি জীবন।

রাজধানীর খিলগাঁওয়ে বাবা মো. দৌলত উল্যাহ ও মা লুৎফুন্নাহারকে নিয়ে নিরাপদেই আছেন তিনি এখন। কিন্তু বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের ভয়ঙ্কর বিস্তারে তিনি শঙ্কিত। চারপাশের কোথাও থেকে এখন ভালো খবর পাচ্ছি না। আমাদের বাসার আশপাশেও করোনা রোগী পাওয়া গেছে। আল্লাহই জানে অবস্থা কি হয়।

তিনি বলেন, গত ২৫ দিন ধরে বাসায় কাজের লোক নেই। সব কিছু নিজেই করছি। কাপড় ধুয়া, ঘর মুছা, টুকটাক রান্না করা’সহ যাবতীয় কাজ তিনি আগ্রহ নিয়ে করছেন। আবার নিয়মিত নামাজও পড়ছেন। পেশাগতভাবে সঙ্গীত জীবন নিয়ে ব্যস্ত হবার পর এতো দীর্ঘ অবসর সময় মিলেনি। তাই বাবা মায়ের সাথে নিভৃতে সময়টাও উপভোগ করছি।

কনা বলেন, করোনার মাঝে একটা সুফল আমি পেয়েছি তা হলো, বাবা-মাকে সেবা করার অফুরন্ত সুযোগ।

বাবা-মার সেবা করার পাশাপাশি ভক্ত ও দেশবাসীকে সচেতন করতে ঘরে বসে পাঁচটি গানেও কণ্ঠ দিয়েছেন তিনি। গানগুলো লিখেছেন কবির বকুল, আসিফ ইকবাল, শাওন’সহ আরো দু’জন। গানগুলোর সুর সঙ্গীত করেছেন অদিত, নিধি, সন্ধি, পাভেল।

দিলশাদ নাহার কনা জানান, টকেনোলজির সর্বোচ্চটুকু ব্যবহার করেই তিনি গান গাইছেন, সময় পার করছেন। এদিকে আজ পহেলা বৈশাখ উপলক্ষ্যে আজ সন্ধ্যা ৭ থেকে ৮টা পর্যন্ত একটি রেডিওতে সরাসরি অংশগ্রহন করবেন তিনি।

তবে কনা জানান বাসায় বসেই তিনি সরাসরি এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহন করবেন।

এদিকে বুধবার ১৫ এপ্রিল কনার জন্মদিন। এবারের জন্মদিন নিয়ে কোনো পরিকল্পনা নেই। ঘরে বসেই সময় কাটবে কনার। কনা বলেন,‘সত্যি বলতে কী চারপাশে আসলে কোনো সুখ নেই। তাই নিজের জন্মদিন নিয়েও তেমন কোনো ভাবনা নেই। শুধু একটি কথাই বলতে চাই, পৃথিবী খুব তাড়াতাড়ি করোনা মুক্ত হোক, আমরা যেন নতুন পৃথিবীতে নতুন করে বাঁচতে পারি। সবাই নিজের ঘরেই থাকুন, নিরাপদে থাকুন, নিজের পরিবারকে নিরাপদে রাখুন, অন্যকেও নিরাপদে রাখুন। আর সবার জন্য দোয়া রইলো যেন আল্লাহ সবাইকে ভালো রাখেন সুস্থ রাখেন। আমাদের জন্যও দোয়া করবেন।’


আরো সংবাদ