০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৫ মাঘ ১৪২৮, ১৬ রজব ১৪৪৪
ads
`

গণসমাবেশ সফল করতে সুপ্রিম কোর্টে আইনজীবীদের মিছিল

-

১০ ডিসেম্বর বিএনপির ঢাকা বিভাগীয় গণসমাবেশ সফল করতে সুপ্রিম কোর্ট ও ঢাকা বারে আইনজীবীদের মাঝে লিফলেট বিতরণ এবং রাজপথে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন আইনজীবীরা। গতকাল বুধবার দুপুরে সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে মিছিল শুরু হয়ে শিক্ষাভবন, কদম ফোয়ারা, জাতীয় ঈদগাহ মাঠ হয়ে বার কাউন্সিল গেটে এসে শেষ হয়। মিছিলে বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা অংশগ্রহণ করেন। জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম কেন্দ্রীয় ও সুপ্রিম কোর্ট বার ইউনিটের নেতৃত্বে মিছিল ও সুপ্রিম কোর্ট সংলগ্ন সড়কে লিফলেট বিতরণ করা হয়।


লিফলেট বিতরণের সময় মিছিলের নেতৃত্ব দেন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সভাপতি ও সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল এ জে মোহাম্মদ আলী, সুপ্রিম কোর্ট বারের সাবেক সভাপতি জয়নুল আবেদীন, জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের মহাসচিব ও বিএনপির আইন সম্পাদক ব্যারিস্টার কায়সার কামাল, সুপ্রিম কোর্ট বারের সাবেক সম্পাদক ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল, জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সুপ্রিম কোর্ট শাখার সভাপতি আব্দুল জাব্বার ভূঁইয়া ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম সজল, আইনজীবী মোহাম্মদ আলী, মো: আক্তারুজ্জামান, মোরশেদ আল মামুন লিটন, সগীর হোসেন লিয়ন, সুপ্রিম কোর্ট বারের বর্তমান সহ সম্পাদক মো: মাহবুবুর রহমান খান, গাজী তৌহিদুল ইসলাম, আব্দুল্লাহ আল মাহবুব, মাহমুদ হাসান, ব্যারিস্টার সৈয়দ তাজরুল হোসেন, কে আর খান পাঠান, ফাইয়াজ জিবরান মঈন, মো: মাকসুদ উল্লাহ, এ কে এম খলিলুল্লাহ কাসেম প্রমুখ।


মিছিল শেষে আইনজীবী ফোরামের মহাসচিব ব্যারিস্টার কায়সার কামাল বলেন, ১০ ডিসেম্বরের সমাবেশ সফল করতে প্রচারণার অংশ হিসেবে আমাদের এই মিছিল। বিএনপির সমাবেশ নয়াপল্টনে হবে। সোহরাওয়ার্দী উদ্যান সন্ত্রাসীদের অভায়রণ্য। সেখানে কোনো সমাবেশ হবে না। যেকোনো মূল্যে আমরা সমাবেশ সফল করব।


ঢাকা বারের মিছিল-লিফলেট বিতরণ : এ দিকে ১০ ডিসেম্বর বিএনপির গণসমাবেশকে সফল করতে পথসভা ও লিফলেট বিতরণ করেছেন ঢাকা বারের বিএনপি সমর্থক আইনজীবীরা গতকাল দুপুর পৌনে ১২টায় ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালত থেকে পথসভা বের করেন বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা। পথসভাটি ঢাকা জজ কোর্ট, সিএমএম আদালত প্রদক্ষিণ করে আইনজীবী সমিতি ভবনের সামনে গিয়ে শেষ হয়।
পথসভার নেতৃত্ব দেন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম ঢাকা বার ইউনিটের সভাপতি মাসুদ আহম্মেদ তালুকদার। মিছিল শেষে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে তিনি বলেন, ১০ ডিসেম্বর বিএনপি ঢাকায় সমাবেশ করবে। বাংলাদেশের সর্বস্তরের জনগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে সমাবেশে অংশ নেয়ায় সরকার ভীত। তাই অতীতের ন্যায় সমাবেশকে বাধাগ্রস্ত করতে সরকার মরিয়া হয়ে গেছে। অন্যায়ভাবে রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গের বাড়িতে হানা দিচ্ছে। মামলায় হাজিরা দিতে আসার সময় তাদের গ্রেফতার করা হচ্ছে অথবা পরোয়ানা জারি করা হচ্ছে।


আরো সংবাদ


premium cement
ভূমিকম্পে তুরস্ক ও সিরিয়ায় নিহত সংখ্যা ৬ হাজার ছাড়াল আদানি গ্রুপের কাছ থেকে কেন বেশি দামে বিদ্যুৎ কারণ হচ্ছে, প্রশ্ন এমপি চুন্নুর সরকারের সমালোচনা কখনো রাষ্ট্রদ্রোহী হতে পারে না : জি এম কাদের ভূমিকম্পের ৩৩ ঘণ্টা পর ধ্বংসস্তূপ থেকে উদ্ধার ৪ বছরের শিশু বেড়াতে এসে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে শিশুর মৃত্যু নদী শুকিয়ে যাওয়ায় কাপ্তাইয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদন কমেছে ঢাকায় ৭ মাত্রার ভূমিকম্পে ৩ লাখ প্রাণহানির শঙ্কা সূচক বাড়লেও লেনদেন ও অধিকাংশ কোম্পানির শেয়ারদর কমেছে মুকিদুলে মুগ্ধতা ছড়াল কুমিল্লা হাফেজ ও কৃতী শিক্ষার্থীদের সম্মাননা দেবে মারকাযুল ফুরকান শিক্ষা পরিবার রাষ্ট্রপতি প্রার্থী মনোনয়নের ক্ষমতা শেখ হাসিনাকে দেয়া হয়েছে

সকল