০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`
বিএফআইইউ-বাজুস যৌথসভা

স্বর্ণ চোরাচালান বন্ধে কঠোর ব্যবস্থা চায় বাজুস

-

স্বর্ণ চোরাচালান বন্ধে কঠোর অবস্থান নিয়েছে বাংলাদেশ জুয়েলারি সমিতি (বাজুস)। এ জন্য উপজেলা পর্যায়ে সচেতনতা বাড়ানোর পাশাপাশি একসাথে কাজ করবে বাজুস ও বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টিলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ)।
গতকাল বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ব্যাংকের পঞ্চম তলায় কাজেমী সেন্টারে বিএফআইইউ ও বাজুস আয়োজিত যৌথসভা শেষে বাজুস সভাপতি সায়েম সোবহান আনভীর এ তথ্য জানান।
বাজুস সভাপতি বলেন, অর্থপাচার ও ডলার সঙ্কটের নেপথ্যে রয়েছে স্বর্ণ চোরাচালান। অনেকে আইনের ফাঁক-ফোকর দিয়ে বেরিয়ে যাচ্ছেন। আইন থাকলেও যথাযথ প্রয়োগ নেই। ফলে আইনের ফাঁক-ফোকর দিয়ে স্বর্ণ চোরাকারবারিরা খালাস পাচ্ছেন। স্বর্ণ চোরাচালান বন্ধে প্রয়োজনে আইন সংশোধন করে জামিন অযোগ্য মামলা দিতে হবে।
সায়েম সোবহান আনভীর বলেন, এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে মানিলন্ডারিং ও সন্ত্রাসী কার্যে অর্থায়ন প্রতিরোধে নীতিনির্ধারণী সংস্থা ‘এশিয়া/প্যাসিফিক গ্রুপ অন মানিলন্ডারিং (এপিজি)’ কর্তৃক ২০১৫-১৬ মেয়াদে পরিচালিত তৃতীয় পর্বের মিউচুয়াল ইভালুয়েশন বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে। তিনি ওই সময়ে বাজুস কর্তৃপক্ষের সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ জানান এবং এ রেটিং অক্ষুণ্ন রাখতে বাজুস ও বিএফআইইউ এর মধ্যে সহযোগিতা-সমন্বয় আরো সুদৃঢ়করণ এবং স্বর্ণ চোরাচালান প্রতিরোধে যৌথ উদ্যোগের ক্ষেত্র আরো প্রসারিত করার আহ্বান জানান।
জব্দ করা স্বর্ণ নিলামে বিক্রির বিষয়ে বাজুস সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার আগরওয়ালা বলেন, অবৈধভাবে আসা বা জব্দ করা স্বর্ণ নিলামে বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এ দাবি আমাদের অনেক আগে থেকেই ছিল। আমরা চাই ডলার সঙ্কটের এ সময়ের জব্দ করা বার নিলামে বিক্রি করা হোক। এসবের ‘মেটেরিয়াল’ আমাদের দেশের জন্য ভালো হবে। কারণ আমাদের এখানে এখন বসুন্ধরা গোল্ড রিফাইনারির মতো প্রতিষ্ঠান গড়ে ওঠেছে।
বিএফআইইউ প্রধান মাসুদ বিশ্বাস বলেন, মানিলন্ডারিং ও সন্ত্রাসী কার্যে অর্থায়নের মতো আন্তর্জাতিক সমস্যা মোকাবেলায় বাংলাদেশ সরকারের দৃঢ় অবস্থান রয়েছে। দুর্নীতি, মানিলন্ডারিং, সন্ত্রাস ও সন্ত্রাসে অর্থায়ন প্রতিরোধে সরকার ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি গ্রহণ করেছে। তিনি বাংলাদেশে মানিলন্ডারিং ও সন্ত্রাসী কার্যে অর্থায়ন প্রতিরোধে কেন্দ্রীয় সংস্থা হিসেবে বিএফআইইউ-এর ভূমিকা তুলে ধরেন।
কেন্দ্রীয় ব্যাংক জানায়, মানিলন্ডারিং ও সন্ত্রাসী কার্যে অর্থায়ন প্রতিরোধে রিপোর্ট প্রদানকারী সংস্থা মূল্যবান ধাতু বা পাথরের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোর স্বনিয়ন্ত্রণকারী কর্তৃপক্ষ হিসেবে বাংলাদেশ জুয়েলার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বাজুস) দায়-দায়িত্ব ও স্বর্ণ চোরাচালান প্রতিরোধে যৌথ কার্যক্রম গ্রহণে চলমান ও ধারাবাহিক অংশগ্রহণ বিষয়ে গতকাল বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ে বিএফআইইউ ও বাজুসের সাথে একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়। বাজুসের সভাপতি সায়েম সোবহান আনভীরের নেতৃত্বে ১৩ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল সভায় অংশগ্রহণ করেন। এ ছাড়া বিএফআইইউ-এর উপপ্রধান ও পরিচালকসহ ইউনিটের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা সভায় অংশগ্রহণ করেন।


আরো সংবাদ


premium cement