২৭ নভেম্বর ২০২২, ১২ অগ্রহায়ন ১৪২৯, ২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

৪ রোহিঙ্গা হত্যার কথা স্বীকার করে পিস্তল হাতে ভিডিও বার্তা

-

কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পের চার মাঝিকে (নেতা) কিভাবে কার ইন্ধনে খুন করা হয়েছে তার বর্ণনা দিয়েছে মো: হাসিম (২১) নামে এক যুবক। এক মাসে চার নেতা হত্যার বিষয়টি সে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভিডিও আকারে প্রকাশ করেছে। বাংলা ট্রিবিউন।
ভিডিওতে দেখা যায়, কোন ক্যাম্পের কোন মাঝিকে কিভাবে হত্যা করেছিল, পিস্তল হাতে তার বর্ণনা দিচ্ছে হাসিম। তাকে বলতে দেখা যায়, তার মতো ২৫ জন যুবককে অস্ত্র দিয়েছে ইসলামী সংগঠন ‘মাহাজ’। ভিডিওতে হাসিম বলে, আমাদের মোটা অঙ্কের টাকা দিয়ে হত্যার মিশন বাস্তবায়ন করা হতো। আমাদের মূলকাজ ছিল যারা প্রত্যাবাসন নিয়ে কাজ করে, তাদের হত্যা করা। ৫-৬ দিনের মধ্যে আমরা তিন মাঝিসহ এক ভলান্টিয়ারকে হত্যা করেছি।
হত্যার শিকার মাঝিদের নামও বলেছে ওই যুবক। তারা হলো- উখিয়ার ১৮ নম্বর ক্যাম্পের হেড মাঝি জাফর, ৭ নম্বর ক্যাম্পের ইসমাঈল, কুতুপালং এক্সটেনশন ক্যাম্প-৪ এইচ ব্লকের এরশাদ ও হেড মাঝি আজিমুল্লাহ। ভিডিও বার্তায় সন্ত্রাসী সংগঠন মাহাজের চার মুখপাত্রের নাম বলেছে হাসিম। তারা হলো- জিম্মাদার শাহাব উদ্দিন, রহমত উল্লাহ, হেড মাঝি ভূঁইয়া, মৌলভী রফিক। তারা এই সংগঠনের নেতৃত্ব দিতেন বলে জানিয়েছে সে।
হাসিম আরো জানায়, তাদের সামনে আরো বড় মিশন ছিল। কিন্তু সে নিজের ভুল বুঝতে পেরেছে। তাই এই খারাপ জগৎ ছেড়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে চায়।
এ বিষয়ে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে দায়িত্বরত ৮-আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ বলেন, ভিডিওতে ওই রোহিঙ্গা যুবক যাদের নাম উল্লেখ করেছে, তদন্ত সাপেক্ষ তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। ক্যাম্পের নিরাপত্তার জন্য আমরা সবসময় সজাগ রয়েছি।


আরো সংবাদ


premium cement