৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯, ৩ রবিউল আওয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

ঢাকায় পুলিশের ব্লকরইেড ও বিশেষ অভিযান শুরু

-

১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে রাজধানী ঢাকায় ব্লকরইেড ও বিশেষ অভিযানের নির্দেশ দিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মোহা: শফিকুল ইসলাম। গতকাল বৃহস্পতিবার রাত থেকেই রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় এই অভিযান শুরু হয়েছে। গত বুধবার ডিএমপির কমিশনার শফিকুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা জারি করা হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। বাংলা ট্রিবিউন।
ডিএমপি সূত্র জানায়, ঢাকা মহানগরীর আইনশৃঙ্খলা ও অপরাধ নিয়ন্ত্রণ এবং ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসকে কেন্দ্র করে নাশকতা, নৈরাজ্য ও ধ্বংসযজ্ঞ এবং সোসাল মিডিয়া, ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ায় গুজব ও অপপ্রচারের মাধ্যমে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটানোর অপচেষ্টা প্রতিরোধকল্পে আগে থেকেই অপরাধ দমনে প্রস্তুতি গ্রহণ ও প্রতিরোধমূলক কার্যক্রম পরিচালনার প্রয়োজন রয়েছে। এ লক্ষ্যে কোনো সন্ত্রাসী/নাশকতাকারী/উগ্রবাদী গ্রæপ যাতে কোনো বাসা, আবাসিক হোটেল, মেস, বস্তিসহ যেকোনো এলাকায় আশ্রয় বা অবস্থান নিতে না পারে সে জন্য এলাকাভিত্তিক বব্লকরইেড, তল্লাশি ও চেকপোস্ট কার্যক্রম পরিচালনা এবং অনলাইনে গুজব ও অপপ্রচার রোধে ১১ আগস্ট থেকে ১৪ আগস্ট পর্যন্ত ব্লকরইেড ও বিশেষ অভিযান পরিচালনা করার নির্দেশ দেন পুলিশ কমিশনার।
ডিএমপি কমিশনারের পাঠানো চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে, বিশেষ পরিকল্পনার মাধ্যমে ঢাকা মহানগর এলাকার সব আবাসিক হোটেল, মেস এবং বস্তি এলাকায় ব্লকরইেড ও তল্লাশি কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে। কোনো ধরনের সন্ত্রাসী জঙ্গিগোষ্ঠী যেন ঢাকা মহানগরীতে অন্তর্ঘাতমূলক কার্যক্রম পরিচালনা করতে না পারে সে বিষয়ে সবাইকে আন্তরিকতার সাথে কাজ করতে ও বিশেষ অভিযান সফল করার অনুরোধ করা হলো। কমিশনারের পাঠানো চিঠিতে ছয়টি বিশেষ নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।
পুলিশ কর্মকর্তারা জানান, ১৫ আগস্টের নিরাপত্তাকে কেন্দ্র করে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় ব্যাপক গোয়েন্দা নজরদারি করা হচ্ছে। বিশেষ করে ধানমন্ডি ৩২ নম্বর এলাকার আশপাশের এলাকায় ব্যাপক তল্লাশি চৌকি, চেকপোস্ট ও বিশেষ টহল অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে।
ডিএমপির রমনা বিভাগের উপকমিশনার মো: শহীদুল্লাহ গণমাধ্যমকে বলেন, ১৫ আগস্টকে কেন্দ্র করে আমরা ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছি। ইতোমধ্যে বব্লকরইেড ও বিশেষ অভিযান চালু করা হয়েছে। এলাকায় অতিরিক্ত ফোর্স মোতায়েন করে এলাকাভিত্তিক চেকপোস্ট, মেস বাসা বাড়িতে অপরিচিত লোকজনকে যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। আবাসিক হোটেলগুলোতে প্রতিদিনই তল্লাশি করা হচ্ছে। রাতে অলি-গলিতেও চেকপোস্ট বসিয়ে তল্লাশি করা হচ্ছে।


আরো সংবাদ


premium cement