০৪ জুলাই ২০২২, ২০ আষাঢ় ১৪২৯, ৪ জিলহজ ১৪৪৩
`

তাপপ্রবাহ আবার শুরু কমবে মৌসুমিতে

-

দেশে তাপপ্রবাহ আবারো শুরু হয়েছে তবে এটা একেবারেই কমে যাবে মৌসুমি বায়ুর বৃষ্টিতে। আসছে পাশের দেশ ভারতের দিক থেকে। বাংলাদেশে এটা বেশি দিন স্থায়ী হবে না বলে জানিয়েছেন ঢাকা আবহাওয়া অফিসের আবহাওয়াবিদরা। তারা বলছেন, চলমান তাপপ্রবাহ এর মধ্যেই দেশের কোনো কোনো অংশে কালবৈশাখী ঝড়ের কারণে প্রশমিত হয়ে যাচ্ছে। যেখানে কালবৈশাখীর বায়ু নেই সেখানে গরমটা থেকে যাচ্ছে। তারপরও বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে আগামী ৩ থেকে ৪ দিন তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে।
আজ বুধবার দেশের কয়েকটি স্থানে মৃদু তাপপ্রবাহ থাকবে। আবহাওয়া অফিস বলছে, গোপালগঞ্জ, চাঁদপুর, নোয়াখালী, ফেনী, পাবনা, রাজশাহী, বরিশাল ও পটুয়াখালী জেলাসহ খুলনা বিভাগের ওপর দিয়ে মৃদু তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা কিছু জায়গা থেকে প্রশমিত হতে পারে। মৃদু তাপপ্রবাহের সময় তাপমাত্রা ৩৬ থেকে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে থাকে।
এবার তাপপ্রবাহের সাথে যোগ হয়েছে বায়ুতে আর্দ্রতাপূর্ণ ভ্যাপসা গরম। বায়ুতে জলীয়বাষ্প কিছুটা বেশি থাকলে শরীরে প্রচুর ঘাম হয় এবং গরমের সাথে বেশি অস্বস্তির কারণ হয়ে থাকে। এ কারণে মানুষ ভাবতে থাকে অসহ্য গরম পড়ছে। অনেকের কাছে মনে হতে পারে পরিবেশে তাপমাত্রা বুঝি চরম আকার ধারণ করেছে। গরমে ও ঘামে শরীর থেকে প্রচুর পানি বেরিয়ে গিয়ে শরীরে শুষ্কতার সৃষ্টি করতে পারে। কেউ কেউ হতে পারেন ডায়রিয়ার শিকার।
চিকিৎসকরা বলছেন, শরীরে প্রচুর ঘাম হলে বেরিয়ে যাওয়া পানি পূরণ করে দিতে হয় বাড়তি পানি পান করতে হয়। পানিশূন্যতায় শরীরে অবসন্নতা দেখা দিলে উচ্চরক্তচাপ না থাকলে কিছুটা খাবার স্যালাইন পান করলে আরাম বোধ হয়। শরীরে যথেষ্ট পানি থাকলে শরীর শুকিয়ে যায় না ফলে হিটস্ট্রোকও রোধ করা যায়।


আরো সংবাদ


premium cement