২২ মে ২০২২
`

ইউক্রেন নিয়ে অবস্থান ব্যাখ্যা করল রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র

-

পশ্চিমা দেশগুলোর সামরিক জোট ন্যাটোতে যোগ দেয়া বা না দেয়াকে কেন্দ্র করে ইউক্রেনের উত্তেজনাকর যুদ্ধ পরিস্থিতি সম্পর্কে বাংলাদেশকে নিজেদের অবস্থান ব্যাখ্যা করেছে রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র। ইউরোপীয় ইউনিয়নও (ইইউ) একই লক্ষ্যে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাথে বৈঠক করবে।
রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেকজান্ডার ম্যানটিটস্কি গত বুধবার পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেনের সাথে দেখা করে ইউক্রেন ইস্যুতে মস্কোর অবস্থান ব্যাখ্যা করেছেন। যুক্তরাষ্ট্র একটি চিঠি দিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে এ ইস্যুতে নিজেদের অবস্থান তুলে ধরেছে। অন্য দিকে ইউক্রেন পরিস্থিতি সম্পর্কে ইইউর রাষ্ট্রদূত চালর্স হোয়াইটলি গতকাল ঢাকা রিপোটার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) এক সংলাপে বলেছেন, বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে ইউক্রেন ইস্যুতে ইইউর অবস্থান জানাতে সামনে একটি বৈঠকের অনুরোধ জানানো হয়েছে। এ ব্যাপারে আমাদের অবস্থান পরিষ্কার। আর তা হলো, ইউক্রেনের আঞ্চলিক অখণ্ডতা ও সার্বভৌমত্বকে সম্মান জানাতে হবে। ইউক্রেন সীমান্তে রাশিয়ার এক লাখ ৪০ হাজার সৈন্য সমাবেশ খুবই উদ্বেগজনক। যুক্তরাষ্ট্র ও ইইউ এই উত্তেজনা নিরসনে কাজ করছে। তিনি বলেন, ২০১৪ সালে ক্রাইমিয়া দখলে নিয়ে রাশিয়া ইউক্রেনে আগ্রাসন চালিয়েছিল। নতুন করে এ ধরনের পরিস্থিতির পুনরাবৃত্তি আমরা চাই না। আমরা চাই শান্তি বজায় থাকুক। স্বাধীন দেশ হিসেবে ইউক্রেনের সিদ্ধান্ত নেয়ার অধিকার রয়েছে তারা কোনো জোটে যোগ দেবে কি না। সীমান্তে সৈন্য সমাবেশের মাধ্যমে চাপ প্রয়োগ উত্তেজনা প্রশমনে সহায়ক হচ্ছে না। আর আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের অংশ হিসেবেই বাংলাদেশকে পরিস্থিতি ব্যাখ্যা করা হবে।
ইউক্রেন নিয়ে বিশ্বের বৃহৎ শক্তিগুলোর বাংলাদেশকে অবস্থান ব্যাখ্যা করার কারণ সম্পর্কে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানান, যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া উভয়েই জাতিসঙ্ঘ নিরাপত্তা পরিষদে ভেটো ক্ষমতার অধিকারী। তাই এই ফোরামে ইউক্রেন নিয়ে আলোচনায় জটিলতা রয়েছে। কিন্তু জাতিসঙ্ঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে ইস্যুটি নিয়ে আলোচনা করা যেতে পারে। সে ক্ষেত্রে বাংলাদেশের ভূমিকা রাখার সুযোগ রয়েছে। এ ছাড়া জাতিসঙ্ঘ মানবাধিকার পরিষদে ইউক্রেন নিয়ে আলোচনার চেষ্টা হতে পারে। ৪৭ সদস্যবিশিষ্ট এ পরিষদেও বাংলাদেশ রয়েছে। আলোচনার পাশাপাশি কোনো প্রস্তাব উঠলে তাতে ভোটের বিষয়টি চলে আসবে।
ইউক্রেন কখনো ন্যাটোতে যোগ দেবে না- এমন লিখিত নিশ্চিয়তা চাইছে রাশিয়া। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্র এই দাবি প্রত্যাখ্যান করেছে। ইইউর সদস্যভুক্ত কয়েকটি দেশ বিষয়টি নিয়ে রাশিয়ার সাথে আলোচনা করে উত্তেজনা প্রশমনের চেষ্টা করছে।


আরো সংবাদ


premium cement