২৩ জানুয়ারি ২০২২, ০৯ মাঘ ১৪২৮, ১৯ জমাদিউস সানি ১৪৪৩
`

কাটাখালী পৌরমেয়র আব্বাস তিন দিনের রিমান্ডে

-

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল স্থাপন নিয়ে বিতর্কিত বক্তব্যের জেরে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়ের করা মামলায় রাজশাহীর কাটাখালী পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলীর তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। গতকাল সোমবার দুপুরে রাজশাহী মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-২-এর বিচারক শংকর কুমার তার রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আব্বাসকে মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করে। আসামিপক্ষের আইনজীবীরা রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিন আবেদন করেন। আদালত উভয়পক্ষের শুনানি শেষে মেয়র আব্বাসের তিন দিনের রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেন। একই সাথে এ ঘটনায় আর অন্য কেউ জড়িত আছে কি না সে বিষয়টিও তদন্তের জন্য মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তাকে (আইও) নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।
এ দিকে আব্বাসকে আদালতে তোলাকে কেন্দ্র করে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়। এ সময় আদালত চত্বরে মোতায়েন করা হয় অতিরিক্ত পুলিশ। যেকোনো ধরনের অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে পুলিশের পক্ষ থেকে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়।
১ ডিসেম্বর সকালে রাজধানী ঢাকার রাজমনি ঈসা খাঁ হোটেল থেকে কাটাখালী পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলীকে গ্রেফতার করে র্যাব। ওই দিন রাতেই র্যাবের পক্ষ থেকে তাকে রাজশাহী নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। পরদিন ২ ডিসেম্বর সকালে আব্বাস আলীর বিরুদ্ধে ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন জানিয়ে তাকে রাজশাহীর আদালতে নেয়া হয়। ওই দিন রিমান্ড আবেদনের ওপর শুনানি না হওয়ায় আদালতের নির্দেশে আব্বাসকে কারাগারে পাঠানো হয়। অবশেষে সোমবার শুনানি শেষে তার তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।
সম্প্রতি কাটাখালী পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলীর একটি কথোপকথনের অডিও ভাইরাল হয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে। ২২ নভেম্বর রাত থেকে ১ মিনিট ৫১ সেকেন্ডের ওই অডিওটি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। আব্বাস আলী প্রাথমিকভাবে ভাইরাল হওয়া অডিও রেকর্ডটি তার বলে স্বীকার করলেও বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটূক্তির অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। এ অবস্থায় মেয়র আব্বাস আলীর বিরুদ্ধে ২৩ নভেম্বর রাতে বোয়ালিয়া মডেল থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলার এজাহার দেয়া হয়। পরে পুলিশ সদর দফতরের অনুমোদনের পর ২৪ নভেম্বর মামলাটি গ্রহণ করা হয়। রাজশাহী সিটি করপোরেশনের ১৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আব্দুল মোমিন বাদি হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। মামলাটি রেকর্ড করে থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শাহাবুল আলমকে তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।
আব্বাস আলী রাজশাহীর পবা উপজেলার কাটাখালী পৌর আওয়ামী লীগের আহŸায়ক এবং জেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী সদস্য। তিনি আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকে নির্বাচিত হয়ে টানা দুই মেয়াদে মেয়রের দায়িত্বে আছেন। এরই মধ্যে তাকে দলীয় পদ থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। আর দল থেকে তাকে আজীবনের জন্য বহিষ্কারে কেন্দ্রীয় হাইকান্ডের কাছে সুপারিশ করেছে জেলা আ’লীগ।


আরো সংবাদ


premium cement

সকল