২৮ জানুয়ারি ২০২২, ১৪ মাঘ ১৪২৮, ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩
`

নামের ভুলে ফাঁসির রায় পুনর্বিবেচনার দাবিতে ঢাকা বরিশাল মহাসড়ক অবরোধ

-

মাদারীপুরের রাজৈরে নামের ভুলের কারণে শিশু হত্যা মামলার ফাঁসির রায়ে দণ্ডিত হয়ে মৃত্যুর প্রহর গুনছে ইমন গাছী। তিনি মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার কোদালিয়া বাজিতপুর গ্রামের মুহিত গাছীর ছেলে। তিনি এখন মাদারীপুর কারাগারে বন্দী রয়েছেন।
ইমনের এই রায় পুনর্বিবেচনা ও শর্তবিহীন মুক্তির দাবিতে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে বাজিতপুর বাজার থেকে সাধুরব্রিজ পর্যন্ত মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করে ইমনের পরিবার ও এলাকাবাসী। সমাবেশে বক্তারা জানান, ২০১৫ সালের ২০ সেপ্টেম্বর রাজৈর উপজেলার খালিয়া ইউনিয়নের সেনদিয়া গ্রামের টুকু সরদারের মেয়ে আদুরী হত্যাকাণ্ড হয়। এই হত্যা মামলার রায় ঘোষিত হয় গত ২৯ নভেম্বর। এই এলাকায় রায় শোনার পরে ফুঁসে ওঠে ইমনের স্বজন ও স্থানীয়রা।
এ রায়ে তিনজনকে ফাঁসির আদেশ দেন মাদারীপুর জেলা ও দায়রা জজ কোর্টের বিচারক নিতাই চন্দ্র সাহা। দণ্ডপ্রাপ্তরা হলোÑ পিরোজপুর জেলার ভৈরমপুর গ্রামের রফিকুল ইসলাম মোল্লার ছেলে শফিকুল ইসলাম মোল্লা, রাজৈর উপজেলার কেদালিয়া বাজিতপুর গ্রামের মুহিত গাছীর ছেলে রিমন হোসাইন ওরফে (ইমন গাছীÑ নাম ভুলের শিকার) এবং পশ্চিম সরমঙ্গল গ্রামের রফিক হাওলাদারের ছেলে রাজীব হাওলাদার। স্থানীয়দের দাবি কিন্তু ইমন গাছীর নাম রিমন হোসাইন কোথাও নেই। তার জাতীয় পরিচয়পত্র, পাসপোর্টে নাম ইমন গাছী। তাকে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে এ মামলার আসামি করা হয়েছে এবং নির্দোষ একটি ছেলে ফাঁসির রায় মাথায় নিয়ে মৃত্যুর প্রহর গুনছেন। বিক্ষোভকারীরা পুনঃতদন্তের মাধ্যমে রায় পুনর্বিবেচনার জন্য সরকারের কাছে দাবি জানান। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, জেলা যুবলীগের সদস্য ছানোয়ার হাওলাদার, আওয়ামী লীগ নেতা লুৎফর রহমান, ইমন গাছীর মা নার্গিস বেগম, স্ত্রী চম্পা বেগম, সাবেক সদস্য কালাচান মাতুব্বর প্রমুখ। সমাবেশ শেষে এলাকাবাসী বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে ভারত ব্রিজের কাছে ঢাকা- বরিশাল মহাসড়ক অবরোধ করে।

 


আরো সংবাদ


premium cement
আইসিবি এএমসিএল পেনশন হোল্ডারসথ ইউনিট ফান্ডের ১০ টাকা লভ্যাংশ ঘোষণা জুমার নামাজ শেষে মসজিদে দোয়ার আহ্বান হেফাজতের সাংবাদিক এমদাদুল হক খানের ওপর সন্ত্রাসী হামলা ইউক্রেন নিয়ে অবস্থান ব্যাখ্যা করল রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র দুবাইয়ে খেলবেন জোকোভিচ জাতীয় উশুতে এসএ গেমস স্কোয়াড বাছাই ইরাককে হারিয়ে বিশ্বকাপের চূড়ান্ত পর্বে খেলার সুযোগ পেল ইরান পোশাক শিল্পে নারী শ্রমিকদের হার কমে যাওয়ার কারণ কী? কোটি ডলার ব্যয়ের উৎস বিএনপিকে ব্যাখ্যা করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী বিটকয়েন : ক্রিপ্টোকারেন্সি তৈরিতে যেভাবে খনি হয়ে উঠেছে কাজাখস্তান দেশের অধস্তন আদালত তদারকিতে ৮ বিচারপতির মনিটরিং কমিটি

সকল