২৫ অক্টোবর ২০২১, ৯ কার্তিক ১৪২৮, ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরি
`

বুস্টার ডোজ অনুমোদন দেয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের ওপর ক্ষুব্ধ জাতিসঙ্ঘ

-

করোনাভাইরাসের টিকার তৃতীয় বা বুস্টার ডোজ দেয়ায় ছাড়পত্র দিয়ে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন স্বাস্থ্য দফতর জানিয়েছে, প্রবীণ ও ঝুঁকির তালিকায় থাকা বাসিন্দাদের তৃতীয় ডোজ দেয়া শুরু হবে শিগগিরই। এ নিয়ে জাতিসঙ্ঘ ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বলেছে, গরিব দেশগুলো এখনো একটি ডোজও দিতে পারেনি তাদের বাসিন্দাদের। এ অবস্থায় ইসরাইল ও জার্মানির পর এবার যুক্তরাষ্ট্রও তৃতীয় ডোজের অনুমোদন দেয়ার ঘটনা খুবই দুঃখজনক। খবর সিএনএনের।
জাতিসঙ্ঘের আপত্তি উপেক্ষা করে আগেই ইসরাইল ও জার্মানিসহ কিছু ধনী দেশে বুস্টার ডোজ দেয়া শুরু হয়েছে। এই তালিকায় এবার নাম ঢুকল যুক্তরাষ্ট্রের। সেন্টারস ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনের (সিডিসি) ছাড়পত্রে লাখ লাখ আমেরিকান বুস্টার ডোজ পাবেন আগামী মাসে। তবে ধনী দেশগুলোর বক্তব্য, তারা জাতিসঙ্ঘের কোভ্যাক্স প্রকল্পের মাধ্যমে টিকা দান করছে; কিন্তু তা প্রয়োজনের তুলনায় সামান্য। জাতিসঙ্ঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস একটি বৈঠকে বলেন, বিশ্বে ৫৭০ কোটিরও বেশি ডোজ টিকা দেয়া হয়েছে; কিন্তু এর ৭৩ শতাংশ পেয়েছে বিশ্বের ধনী ১০টি দেশ। জাতিসঙ্ঘ জানিয়েছে, বিশ্বের অন্তত ১৫টি দেশ যাদের বেশির ভাগই আফ্রিকার তাদের জনসংখ্যার ৩ শতাংশকেও প্রথম ডোজটিও দিতে পারেনি। এর মধ্যে রয়েছে নাইজেরিয়া ও ইথিওপিয়ার মতো দেশ।
টিকা না নেয়ায় ৩ হাজার স্বাস্থ্যকর্মীকে বরখাস্ত করল ফ্রান্স : করোনার টিকা না নেয়ায় ফ্রান্সের তিন হাজার স্বাস্থ্যকর্মীকে বরখাস্ত করেছে সরকার। গত জুলাইয়ে সরকার একটি আইন পাস করে ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে স্বাস্থ্যকর্মী ও দমকলবাহিনীর সদস্যদের অন্তত এক ডোজ টিকা নিতে বলেছিল। নির্দেশ অমান্য করায় এই স্বাস্থ্যকর্মীদের বরখাস্ত করা হলো। খবর বিবিসির। ফ্রান্সের দক্ষিণাঞ্চলের নিস শহরের একটি হাসপাতালের ৪৫০ জন স্বাস্থ্যকর্মীকে বরখাস্তের জেরে হাসপাতাল ভবনের বাইরে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। এতে ফ্রান্সের স্বাস্থ্যসেবা বিঘিœত হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। তবে ফ্রান্সের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ওলিভেয়ার ভেরান বলছেন, কয়েক ঘণ্টার জন্য হাসপাতালে স্বাস্থ্যসেবা কিছুটা বিঘিœত হলেও পরবর্তী সময়ে সব স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করা হয়েছে।
তুর্কমেনিস্তানে কোনো করোনা রোগী নেই : করোনা মহামারীর দুই বছর হতে চলল, গোটা বিশ্ব যখন করোনায় জড়সড় তখন তুর্কমেনিস্তানে কোনো করোনা রোগী নেই বলে দাবি করছে দেশটি। যদিও অধিকারকর্মীরা বলছেন, এটি মিথ্যা কথা। সিএনএনের প্রতিবেদনে জানা গেছে এ তথ্য। ২০০৬ সাল থেকে ক্ষমতায় থাকা দেশটির প্রেসিডেন্ট গুরবাঙ্গুলি বেরদিমুখমাদভ দেশে করোনা আক্রান্তের রিপোর্ট ভুয়া বলে উড়িয়ে দিয়েছেন এবং জাতিসঙ্ঘে দেয়া ভাষণে তিনি বলেন, মহামারী নিয়ে রাজনীতিকরণ করা উচিত নয়। মধ্য এশিয়ার দেশটি দাবি করছে, সেখানে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসের কোনো সংক্রমণ হয়নি। একসময় সোভিয়েত ইউনিয়নের অধীনে থাকা দেশটিতে এখন জনসংখ্যা ৬০ লাখের কাছাকাছি।



আরো সংবাদ


বাংলাদেশ দখলের হুমকি দিয়ে লাভ কার (৫৬২৬১)অভাবের তাড়নায় ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে আত্মহত্যা করলেন বিজিবি সদস্য! (১৭৫২২)ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করলেন আন্তর্জাতিক তায়কোয়ান্দোর রেফারি ড. পেটেল (১৫৭৭১)গেইলের প্রয়োজন ৯৭ রান, সাকিবের ১ উইকেট (৯১৫৯)প্রতিরক্ষার মতোই যোগাযোগ অন্যের হাতে রাখতে পারি না : এরদোগান (৬৬৫৫)মিয়ানমারের উত্তরাঞ্চলে ব্যাপক সৈন্য সমাবেশ, গণহত্যার আশঙ্কা জাতিসঙ্ঘের (৬৬০৪)ভারতের বিরুদ্ধে দলে যাদের রেখেছে পাকিস্তান (৬৩২১)সিরিয়ায় ইসরাইলি বিমান হামলায় বাধা দিবে না রাশিয়া (৬২২৬)আজ থেকে সুপার লিগ : সুপার টুয়েলভের কখন কোন দলের খেলা (৫৮৭৪)পাকিস্তানের আকাশসীমা ব্যবহারের বিষয়ে চুক্তির দ্বারপ্রান্তে যুক্তরাষ্ট (৫৭৭৯)