১৯ জুন ২০২১
`

ভাড়ায় চালিত প্রাইভেটকার থেকে সাবধান

-

কারো পোষমাস কারো সর্বনাশ। অবস্থাটি টিক তেমনই। বিপদগ্রস্ত যাত্রীদের বিপদের সুযোগেই ভাড়ায় চালিত প্রাইভেট কারের ড্রাইভার সেজে লুটে নিচ্ছে সর্বস্ব। লকডাউন ও ঈদ সামনে রেখে ঘরমুখো মানুষের বাড়ি ফেরার আকুতি ও জরুরি প্রয়োজনকে টার্গেট করে এই শ্রেণীর দুর্বৃত্তের আবির্ভাব হয়েছে ঢাকা আরিচা মহাসড়কে।
গণপরিবহন বন্ধ থাকার সুযোগে বিভিন্ন ধরনের প্রাইভেট কার ও মাইক্রোবাস ভাড়া নিয়ে স্বাভাবিকের তুলনায় কম ভাড়ায় মোটামুটি অবস্থাপন্ন ব্যক্তিদের টার্গেট করে যাত্রী হিসেবে তুলে নেয়। তার পর সুযোগমত হাত পা বেঁধে চালায় অবর্ননীয় শারীরিক নির্যাতন। পারিবারিক সক্ষমতা অনুযায়ী দাবি করে মুক্তিপণ টাকা। সেই সাথে ওই ব্যক্তির কাছে যা ছিল তাও হাতিয়ে নেন। এই ছিনতাইকারী চক্রের তিনজন গ্রেফতার হয়েছে মানিকগঞ্জ পুলিশের তৎপরতায় ।
মানিকগঞ্জ সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ভাস্কর সাহা জানান, গণপরিবহন বন্ধ থাকার সুযোগ নিয়ে এক বা একাধিক চক্র ঢাকা আরিচা মহাসড়কে ভাড়া করা প্রাইভেটকার নিয়ে যাত্রী তুলেন। এর পর ওই যাত্রীর কাছ থেকে সবকিছু লুট করে ও আটকিয়ে রেখে বিকাশের মাধ্যমে টাকা আদায় করে। এর ওই ব্যক্তিকে নামিয়ে দেয়া হয় কোনো নির্জন স্থানে।
সম্প্রতি এমনই এক ঘটনার ফারুক হোসেন (৪৩) এক ভিকটিম আসেন মানিকগঞ্জ থানায়। অভিযোগকারী শিক্ষক উক্ত ব্যক্তি মানিকগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড এলাকা হতে রাজবাড়ি যাওয়ার উদ্দেশ্যে একটি প্রাইভেটকারে উঠেন। উঠার পরপরই পাশের সিটে যাত্রীবেশে থাকা দুর্বৃত্তরা তার হাত পা বেঁধে মারধর শুরু করে দাবি করে লক্ষাধিক টাকার। পৃথক দুটি বিকাশ নম্বরে ৫০,০০০ টাকা পরিশোধের পরই তার মুক্তি মেলে। উক্ত ঘটনার অভিযোগ পেয়ে দ্রুত মামলা রুজু করে মানিকগঞ্জ থানা পুলিশ। পুলিশ তদন্তে নেমে রোববার রাতেই তিনজনকে গ্রেফতার করে। এরা হলেন যশোরের অভয়নগর এলাকার মোস্তাহিন শেখের ছেলে আবুল বাশার (৪২), নড়াইল লোহাগড়া উপজেলার জব্বার শেখের ছেলে আলীম হোসেন শেখ (৩৫) ও পাবনা জেলার সুজানগর উপজেলার ইন্তাজ প্রামাণিকের ছেলে বাবর আলী বাবু (৩২)।
প্রত্যেকই ঘটনার সাথে সরাসরি জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। এ ছাড়াও তাদের হেফাজত থেকে ঘটনায় ব্যবহৃত প্রাইভেট কার, লুণ্ঠিত টাকা, স্টিলের পাইপ ও রশি দড়ি উদ্ধার করা হয়। তারা দীর্ঘদিন যাবৎ দেশের বিভিন্ন হাইওয়েতে এ ধরনের অপরাধ করছিলেন বলে পুলিশের কাছে স্বীকার করে। সোমবার গ্রেফতারকৃতদের আদালতে তোলা হয়। এরা আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছে।



আরো সংবাদ