১৪ এপ্রিল ২০২১
`

কুমিল্লায় ঔষধ কারখানায় বিস্ফোরণ : আহত ১০

-

কুমিল্লার রানীর বাজার এলাকার বিসিক শিল্প নগরীর বেঙ্গল ড্রাগসের কেমিক্যাল ওয়ার্কস (ফার্মাসিউটিক্যাল) লিমিটেড নামের একটি ঔষধ কারখানায় ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ওই কোম্পানির অন্তত ১০ জন শ্রমিক আহত হয়েছেন। গুরুতর আহত ছয়জনকে প্রথমে কুমিল্লা সদর হাসপাতালে এবং পরে এদের মধ্যে তিনজনকে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গত বুধবার বিসিক শিল্প নগরীর সি-২৪ ব্লকের ওই কারখানায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় গতকাল জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আহতরা জানান, বিসিক শিল্প নগরীর বেঙ্গল ড্রাগসে কেমিক্যাল ওয়ার্কস (ফার্মাসিউটিক্যাল) লিমিটেড নামের ঔষধ কোম্পানিটিতে বুধবার ৩০ থেকে ৩৫ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী কাজ করছিলেন। হঠাৎ বিস্ফোরণে দ্বিতীয় তলার দেয়ালসহ অন্যান্য অংশ ভেঙে আহত হন ৮ শ্রমিক। তাদের মধ্যে শারমিন আক্তার (১৬), জুলেখা বেগম (৩৮), শামীমা বেগম (৪০), আল আমিন (২৫), ফাহমিদা আক্তার (২০) ও ফাতেমা বেগমকে (৩৫) উদ্ধার করে প্রথমে কুমিল্লা জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে তাদের মধ্যে গুরুতর আহতÑ জুলেখা, শামীমা ও আল আমিনকে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহত আল আমিন, ফাহমিদা আক্তার ও ফাতেমা বেগম জানান, হঠাৎ এ ভয়াবহ বিস্ফোরণে দেয়ালের ইট যেন কাগজের মতো উড়ে যায়। এ সময় আমরা ইট ও কাচ ভেঙে আহত হই। কোম্পানিটির প্লান্ট ম্যানেজার সুমন চন্দ্র দত্ত জানান, এ কোম্পানিটিতে ঔষধ তৈরি করা হয়। এখানে ৩০-৩৫ জন কর্মরত আছেন। এ ঘটনায় ছয়-সাতজন আহত হয়েছেন, তবে সবাই আশঙ্কামুক্ত। তিনি আরো বলেন, এসি বিস্ফোরণ কিংবা রাসায়নিক ও গ্যাস সিলিন্ডার থেকে এ বিস্ফোরণ ঘটে থাকতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। ফায়ার সার্ভিসের ডিফেন্স কুমিল্লা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো: জসিম উদ্দিন সাংবাদিকদের জানান, কারখানা কর্তৃপক্ষ প্রাথমিকভাবে এসি থেকে এ বিস্ফোরণ বলে দাবি করলেও এত বড় বিস্ফোরণ ও দেয়াল ধসের ঘটনা আদৌ এসি নাকি অন্য কারণে বিস্ফোরণ তা খতিয়ে দেখা যাচ্ছে।
তদন্ত কমিটি গঠন : ঘটনার পর কুমিল্লা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসান ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের বলেন, ‘বিস্ফোরণের ঘটনায় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিসিক কর্তৃপক্ষ ও পুলিশের সমন্বয়ে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির অপর দুই সদস্য হচ্ছেনÑ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সোহান সরকার এবং বাংলাদেশ ক্ষুদ্র কুটির শিল্প উন্নয়ন করপোরেশন (বিসিক) কুমিল্লার ডিজিএম জাহাঙ্গীর আলম। কমিটিকে আগামী সাত কার্যদিবসের মধ্যে বিস্ফোরণের বিষয়ে রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে।

 



আরো সংবাদ