০৪ মার্চ ২০২১
`

খান এ সবুরের অবদান ইতিহাসের উজ্জ্বল অধ্যায় : মুসলিম লীগ

-

ব্রিটিশ শাসনাধীন বাংলার পশ্চাৎপদ ও বঞ্চিত মুসলমানদের মনে জাতিসত্তা চেতনার রাজনীতি যারা সৃষ্টি করেছিলেন তাদের মধ্যে খান এ সবুর ছিলেন অন্যতম। শালীন ও শিষ্টাচারের রাজনীতির ধারক খান এ সবুর উপমহাদেশ বিভক্তির পরও ভারতের সাথে যুক্ত থাকা বৃহত্তর খুলনা জেলাকে ১৯৪৭ সালের ১৭ আগস্ট বাউন্ডারি কমিশনে আপিলের মাধ্যমে তদানীন্তন পূর্ব পাকিস্তানের সাথে যুক্ত করেন। ফলে যা পরবর্তীতে বাংলাদেশের অংশ হয়েছে। তদানীন্তন পাকিস্তান জাতীয় পরিষদের সংসদ নেতা, অঘোষিত প্রধানমন্ত্রী খান এ সবুর খালিশপুর ও দৌলতপুরসহ পশ্চাৎপদ বৃহত্তর খুলনাকে শিল্পাঞ্চলে পরিণত করার মাধ্যমে শিল্পবিপ্লবের সূচনা করেন। ১৯৬৯ সাল পর্যন্ত পাকিস্তানের যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে থাকাকালীন সময়ে তিনি পূর্ব পাকিস্তানের টেলি যোগাযোগ ব্যবস্থার বিস্ময়কর উন্নতি সাধন করেন। তার অবদানের প্রতি কৃতজ্ঞতাস্বরূপ খুলনাবাসী ১৯৭৯ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মুসলিম লীগ সভাপতি খান এ সবুরকে তিনটি আসন থেকে নির্বাচিত করেন। অথচ রাজনৈতিক মত ভিন্নতার কারণে আজ কিংবদন্তীতুল্য এসব জাতীয় নেতাদের অবদানকে আমরা স্বীকৃতি দিতে কণ্ঠাবোধ করি। এই রাজনৈতিক সংস্কৃতি থেকে অবশ্যই সবাইকে বেরিয়ে আসতে হবে, না হয় ইতিহাস কাউকে ক্ষমা করবে না।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মহাসচিব কাজী আবুল খায়ের, স্থায়ী কমিটির সদস্য আতিকুল ইসলাম, আনোয়ার হোসেন আবুড়ী, সহসভাপতি নজরুল ইসলাম, অতিরিক্ত মহাসচিব আকবর হোসেন পাঠান, কাজী এ এ কাফী, সাংগঠনিক সম্পাদক খান আসাদ, কেন্দ্রীয় নেতা প্রকৌশলী ওসমান গনী, অ্যাডভোকেট হাবিবুর রহমান, আব্দুল খালেক, মো: নুর আলম, জান্নাতুল মাওয়া প্রমুখ। বিজ্ঞপ্তি।

 



আরো সংবাদ