২২ জানুয়ারি ২০২১
`
সরকারের প্রতি ডা: শাহাদাত

নিরপেক্ষ নির্বাচন দিয়ে জনমত যাচাই করুন

চট্টগ্রাম মহানগর ২৫ নং রামপুর ওয়ার্ডে করোনা সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ ও মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখছেন ডা: শাহাদাত হোসেন : নয়া দিগন্ত -

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ও চসিক নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী ডা: শাহাদাত হোসেন বলেছেন, নিরপেক্ষ গ্রহণযোগ্য, অংশগ্রহণমূলক ও উৎসবমুখর নির্বাচন দিয়ে আপনাদের জনমত যাচাই করুন। আগামী জানুয়ারিতে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের নির্বাচনকে গ্রহণযোগ্য করতে হলে অংশগ্রহণমূলক, নিরপেক্ষ, উৎসবমুখর পরিবেশ নির্বাচনের ব্যবস্থা করতে হবে। বহিরাগত আওয়ামী সন্ত্রাসী বাহিনী বেষ্টিত, ভোটারবিহীন নির্বাচন সংস্কৃতি থেকে নির্বাচন কমিশন ও সরকারকে বেরিয়ে আসতে হবে। এই সরকার নির্বাচনী ব্যবস্থাকে ধ্বংস করেছে। একটি দেশে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা না থাকলে, ভোটারবিহীন একদলীয় নির্বাচন হলে, মানুষ মতপ্রকাশের অধিকার থেকে বঞ্চিত হলে, সেই দেশে আর গণতন্ত্র থাকে না, সন্ত্রাস ও উগ্রবাদের সৃষ্টি হয়। এই দেশের মানুষের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতা, গণতন্ত্র রক্ষায় দেশপ্রেমিক জনতাকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠায় আপনাদের ভোটকেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিতে হবে। আগামী সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বহিরাগত সন্ত্রাসীরা যেন সেন্টারে প্রবেশ করতে না পারে প্রশাসনকে সে ব্যবস্থা করতে হবে; অন্যথায় জনগণ ওই সব সন্ত্রাসীকে শায়েস্তা করবে।
তিনি ২৫ নম্বর রামপুর ওয়ার্ড বিএনপি আয়োজিত করোনা সুরক্ষাসামগ্রী বিতরণ ও মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে গত বৃহস্পতিবার বিকেলে এসব কথা বলেন।
প্রধান বক্তার বক্তব্যে মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর বলেছেন, সামনে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচন। আর সে নির্বাচনে বিএনপি নেতাকর্মীদের আতঙ্কিত করতে করোনার সুরক্ষাসামগ্রী বিতরণেও বাধা দেয়া হয়েছে প্রশাসন থেকে। এবার নির্বাচনে ভোট ডাকাতি করলেই তার পরিণাম ভযাবহ হবে। জনগণকে সাথে নিয়েই সরকার পতনের আন্দোলনের ঘোষণা দেয়া হবে।
ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি শরিফুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সিনিয়র সহসভাপতি মো: ইবনুল হাসানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, কাউন্সিলর প্রার্থী আবুল হাসেম, সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ইসলাম, সহ-সম্পাদক কাউন্সিলর প্রার্থী শহীদ মোহাম্মদ চৌধুরী, হালিশহর থানা বিএনপি সভাপতি মোশারফ হোসেন ডিপ্টি, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম। বক্তব্য রাখেন ওমর মিয়া, মমিনুল হক মুন্না, মো: শফিকুর রহমান, মো: মাসুদ পাটোয়ারী, হুমায়ুন কবির হেলাল, আবুল খায়ের, আবদুর রহিম, মো: সেলিম কন্ট্রাক্টর, কাউন্সিলর প্রার্থী এস এম ফরিদুল আলম, মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, আলী হায়দার, সাইফুল আলম সওদাগর, আহমদ আশরাফ হোসেন, মোহাম্মদ নাসির চৌধুরী, মো: মোর্শেদ কোম্পানি, মুহাম্মদ জহিরুল ইসলাম আবুল, শামসুন্নাহার, রাজ খান, মোহাম্মদ বেলাল, মোহাম্মদ মামুন, মোহাম্মদ রাশেদুল ইসলাম, মোহাম্মদ হায়দার খান, শাহাদাত হোসেন জুয়েল, কবির প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।



আরো সংবাদ