১৭ জানুয়ারি ২০২১
`

নি¤œচাপটি ঘূর্ণিঝড় নিভারে পরিণত

-

দক্ষিণ-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত নি¤œচাপটি ঘনীভূত হয়ে একই এলাকায় ঘূর্ণিঝড় নিভারে পরিণত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টায় এটি চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ৭০০ কিলোমিটার, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ৬৪৫ কিলোমিটার, মংলা সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ৫৮০ কিলোমিটার এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ৫৫০ কিলোমিটার অবস্থান করছিল। এটা আরো শক্তিশালী হয়ে পশ্চিম উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে।
ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৫৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২ কিলোমিটার যা দমকা অথবা ঝড়োহাওয়ার আকারে ৮৮ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের কাছে সাগর বিক্ষুব্ধ রয়েছে।
চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা এবং পায়রা সমুদ্রবন্দরকে আবহাওয়া অধিদফতরের পরবর্তী নির্দেশনা সাবধানতার সাথে পর্যবেক্ষণ করতে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারগুলোকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে।
ঘূর্ণিঝড়টির জন্য বাংলাদেশের আবহাওয়া অফিস কোনো সতর্কসঙ্কেত জারি করেনি। কারণ এটা বাংলাদেশ উপকূল থেকে অনেক দূরে এবং ধীরে ধীরে আরো দূরে সরে যাচ্ছে।
কানাডা থেকে আবহাওয়া বিশেষজ্ঞ মোস্তফা কামাল পলাশ গতকাল নয়া দিগন্তকে কানাডা, যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপিয়ান স্যাটেলাইটের আবহাওয়ার মডেল বিশ্লেষণ করে জানিয়েছেন, ঘূর্ণিঝড় নিভার শেষ পর্যন্ত ভারতের তামিলনাড়– ও শ্রীলঙ্কার দিকে অগ্রসর হচ্ছে। আজ বুধবার এটা উপকূলে উঠতে পারে। বাংলাদেশে কিছুটা বৃষ্টি হতে পারে এর প্রভাবে।
বর্তমান ঘূর্ণিঝড়টির নাম নিভার রেখেছে ইরান। চলতি বছর মে মাসে সংঘটিত আমফানের পর নিভার বঙ্গোপসাগরের দ্বিতীয় ঝড়।

 



আরো সংবাদ