২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

হাসপাতালে অভিযানের পূর্বানুমতি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের একাংশের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ : টিআইবি

-

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল, বাংলাদেশের নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে দুর্নীতিবিরোধী অভিযান পরিচালনার আগে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পূর্বানুমতি লাগবে মর্মে সরকারি সিদ্ধান্তের আন্তরিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। তিনি গতকাল এক ভিডিও বার্তায় বলেন, এই সিদ্ধান্তের পেছনে হয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের একাংশের জন্য হাসপাতালে অভিযান হলে ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে নয়তো আইন প্রয়োগকারী সংস্থার ওপর স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় তথা সরকারের আস্থাহীনতাই প্রকাশ পাচ্ছে।
ভিডিও বার্তায় ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে দুর্নীতিবিরোধী অভিযানের আগে প্রতিটি ক্ষেত্রে সরকারের পূর্বানুমতি লাগবে’ এই নির্দেশনাটি যেভাবেই ব্যাখ্যা হোক না কেন, এর পেছনে একাধিক উপাদান কাজ করে থাকতে পারে। প্রথম কথা হচ্ছে, পূর্বানুমতি লাগবে বলে যদি আমরা ধরেও নিই, তাহলে আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে একটা নির্দেশনার মাধ্যমেই তো বলে দেয়া যায় যে, আইনের ব্যত্যয় না ঘটিয়ে কার্যকরভাবে অভিযান পরিচালন করতে হবে। সেটি না করে ‘প্রতিটি ক্ষেত্রে অনুমতি লাগবে’ এর অর্থ হচ্ছে, এক দিক থেকে যারা এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ায় রয়েছেন তারা ভেবেছেন বা তাদের একাংশ মনে করছেন যে, চুনোপুঁটি টানাটানি করলে রুই-কাতলা বেরিয়ে আসতে পারে এবং সেটি তাদের একাংশের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ। দ্বিতীয় যে উপাদনটি থাকতে পারে যেসব সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতাল এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ায় প্রভাব রেখেছিল তাদের মধ্যে মোটেই আত্মবিশ্বাস নেই যে, তাদের ওপর অর্পিত দায়িত্ব যথাযথভাবে, স্বচ্ছতার সাথে, নৈতিকতার সাথে দুর্নীতিমুক্ত হয়ে পরিচালনা করতে পারে। যদি তাই হতো তাহলে অভিযানের জন্য পূর্বানুমতির বিষয়টি প্রয়োজন হতো না। তৃতীয় যে বিষয়টি হতবাক করার মতো সেটি হচ্ছে, সরকার বা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় একটি বিষয় প্রকারান্তরে বলে দিচ্ছে ‘আইন প্রয়োগকারী সংস্থা তাদের ওপর অর্পিত দায়িত্ব যথাযথভাবে ক্ষমতার অপব্যবহার না করে পালন করতে পারবে এ ধরনের আস্থা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নেই। আইন প্রয়োগকারী সংস্থার ওপর দেশবাসীর একাংশের মধ্যে তাদের ক্ষমতার অপব্যবহার সম্পর্কে একধরনের আস্থাহীনতার সঙ্কট রয়েছেই; কিন্তু স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এখন একধরনের সিল দিয়ে বলে দিলো আস্থার রাখার মতো প্রতিষ্ঠান আইন প্রয়োগকারী সংস্থা নয়।’ যাই হোক না কেন, এই অভিযানের মাধ্যমে সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালের অনিয়ম-দুর্নীতির চিত্র প্রকাশের যে সুযোগ সৃষ্টি হ২েয়ছিল সেটিকে প্রতিহত করার অন্যতম উপায় হিসেবে ভাবা ছাড়া অন্য কিছু ভাবা খুবই কঠিন।


আরো সংবাদ

মায়ের বুকের দুধই পারে করোনা সংক্রমণ থেকে শিশুদের রক্ষা করতে : গবেষণা প্রবাসী স্ত্রীকে ভিডিও কলে রেখে স্বামীর আত্মহত্যা ‘তুরস্ককে আবার আর্মেনীয়দের ওপর গণহত্যা চালাতে দেয়া হবে না’ নাটক ‘ইনডেমনিটি’ : তারানা হালিমসহ ৫ জনের মামলা খারিজ এমসি কলেজে নারী ধর্ষণের সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি মহিলা দলের ইরান দিয়ে আর্মেনিয়ার অস্ত্র বহনের অভিযোগ অস্বীকার তেহরানের নওগাঁয় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি, হুমকির মুখে আহসানগঞ্জ হাট-সংলগ্ন ব্রিজ স্ত্রীকে পুড়িয়ে হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ড দেশে করোনায় আরো ২৬ জনের মৃত্যু স্লোভেনিয়ায় বাংলাদেশীসহ ১১৩ অভিবাসী আটক ওমানে বাংলাদেশ স্কুল মাস্কাটের জন্য স্বস্তির খবর

সকল

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি নিয়ে নতুন সিদ্ধান্ত মন্ত্রণালয়ের (১২৯৪২)ড. কামাল ও আসিফ নজরুল ঢাবি এলাকায় অবা‌ঞ্ছিত : সন‌জিত (১১৭২৪)‘সনজিতকে ক্যাম্পাসে দেখতে চায় না ঢাবি শিক্ষার্থীরা’ (১০৩২০)এমসি কলেজে গণধর্ষণ : সাইফুরের যত অপকর্ম (৯০২০)আজারবাইজান ৬টি গ্রাম আর্মেনিয়ার দখল মুক্ত করেছে (৮৩৪১)নতুন বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র সামনে আনলো ইরান (৫৭১১)যে কারণে এই শীতেই ভারত-চীন মারাত্মক যুদ্ধের আশঙ্কা রয়েছে (৫৬৫০)অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমের জানাজা অনুষ্ঠিত (৫২২৯)আজারবাইজান-আর্মেনিয়ার মধ্যে সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৩৯ (৫১৬৭)ছাত্রলীগের ঢাবি সভাপতি বক্তব্য স্পষ্টত সন্ত্রাসবাদের বহিঃপ্রকাশ (৫১৫০)