০৬ মার্চ ২০২১
`

কারাগারের সেলে ওসি প্রদীপ

রিমান্ডের প্রক্রিয়া শুরু করেছে র্যাব
-

কক্সবাজার জেলা কারাগারের সেলেই রাখা হয়েছে সাবেক সেনা কর্মকর্তা মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যা মামলার আসামি ও টেকনাফ থানা থেকে প্রত্যাহারকৃত ওসি প্রদীপ কুমার দাশকে। কারাগারে হাজতীদেরও ক্ষোভের শিকার হতে পারেন এমন আশঙ্কায় প্রদীপকে বিশেষ নিরাপত্তায় রাখা হয়েছে বলে কারাগারের একাধিক সূত্র জানিয়েছে। এ ছাড়া এসআই লিয়াকতসহ অপর ছয়জনকেও কারাগারে বিশেষ ব্যবস্থায় রাখা হয়েছে।
কারা সুপার মোহাম্মদ মোকাম্মেল হোসাইন বিস্তারিত কিছু না বলে জানান,মেজর সিনহা হত্যার আসামিরা কক্সবাজার কারাগারে রয়েছেন। সূত্র মতে,কক্সবাজার জেলা কারাগারে ওসি প্রদীপের মিথ্যা মামলা বা নির্যাতনের শিকার হয়ে কারাবরণ করছেন এমন সংখ্যা প্রায় দুই শতাধিক। ওসি প্রদীপের জেলে যাওয়া বিষয়ে পূর্ব থেকেই কারাগারে আলোচনা চলছিল বন্দীদের মধ্যে। কারা কর্তৃপক্ষ এমন সব চিন্তা মাথায় নিয়ে অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে এ ব্যবস্থা নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। এ দিকে মামলার তদন্তকারী সংস্থা র্যাব-১৫ আসামিকে রিমান্ডে নেয়ার প্রক্রিয়া শুরু করেছে। গতকাল সকালে সাংবাদিকদের এই তথ্য জানিয়েছেন কক্সবাজার র্যাব-১৫-এর উপ-অধিনায়ক মেজর মেহেদী হাসান। তিনি বলেছেন,‘প্রক্রিয়া অনুযায়ী আমরা কাজ শুরু করেছি।’ তবে সিনহা হত্যা মামলার আসামিদের রিমান্ডের বিষয়ে আদালত থেকে কোনো কাগজপত্র আজ বিকেল পর্যন্ত কারা কর্তৃপক্ষের কাছে পৌঁছেনি বলে জানান কারা সুপার মোহাম্মদ মোকাম্মেল হোসেন। গত বৃহস্পতিবার বিকেলে মেজর সিনহা হত্যা মামলার আসামি ওসি প্রদীপসহ সাতজন কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আত্মসমর্পণ করলে কক্সবাজার র্যাবের পক্ষ থেকে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়। আদালতে র্যাবের করা রিমান্ড আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে প্রথমে তিনজনকে সাত দিন করে রিমান্ড দেন আদালত। বাকি চারজনকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ দেন। তবে রাতে এই রিমান্ড আদেশের পর র্যাবের পক্ষ থেকে আরও একটি পিটিশন দায়ের করা হয় এবং সেটির শুনানি শেষে এ আদেশ পরিবর্তন করেন আদালত। পরিবর্তিত আদেশে সাত আসামিকে সাত দিন করে রিমান্ড দেয়া হয়। এ ছাড়া পলাতক দুই আসামির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত।



আরো সংবাদ