০৮ এপ্রিল ২০২০

মৌলভীবাজারে চলছেই স্বাস্থ্য বিভাগের টিকাদান কর্মসূচি

সুরক্ষা ছাড়াই কাজ করছেন স্বাস্থ্য সহকারীরা
-

সরকার করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে দেশের সরকারি- বেসরকারি অফিসসহ সব ধরনের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান, ওষুধ বা নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দোকান ছাড়া সব ধরনের দোকানপাট ও গণপরিবহন বন্ধের সিদ্ধান্ত কার্যকর করেছে। তবে এখনো বন্ধ হয়নি মৌলভীবাজার জেলার স্বাস্থ্য বিভাগের টিকাদান কর্মসূচি। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে কোনো ধরনের নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা ছাড়াই প্রত্যন্ত অঞ্চলে জেলার সাতটি উপজেলার ৬৭টি ইউনিয়নের এক হাজার ৬০৮টি অস্থায়ী টিকাদান কেন্দ্রে অব্যাহত রয়েছে ইপিআই কার্যক্রম। প্রায় ৩০০ জন স্বাস্থ্য সহকারী কোনো ধরনের নিরাপদ সুরক্ষা ছাড়াই শিশু, গর্ভবতী মা ও কিশোরীদের টিকাদান কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। তারা ইতঃপূর্বে বিষয়টি সংশ্লিøষ্ট বিভাগের কর্তৃপক্ষ জেলা সিভিল সার্জন ডাক্তার তৌহিদ আহমেদকে লিখিত ও মৌখিকভাবে অবহিত করেছে।
বাংলাদেশ স্বাস্থ্য সহকারী অ্যাসোসিয়েশন মৌলভীবাজার জেলা শাখার সভাপতি অমলেষ পুরাকায়স্ত জানান, করোনা ছোঁয়াচে ভাইরাস, যা মানুষের সংস্পর্সে ছড়ায়। আমরা স্বাস্থ্য সহকারীরা কাজ করি শিশু, মা ও কিশোরীদের সাথে, গ্রাম থেকে গ্রামান্তরে। বিশ্বব্যাপী আক্রান্ত ভয়ঙ্কর ভাইরাস প্রতিরোধে কোনো ধরনের পিপিই ছাড়াই আমরা সংক্রমণের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছি। বিষয়টি কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি আমাদের কোনো সিদ্ধান্ত দেয়া হচ্ছে না।
জেলা সিভিল সার্জন ডাক্তার তৌহিদ আহমেদের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি ইপিআই কার্যক্রম চালু রয়েছে এ কথা স্বীকার করে বলেন, এ কর্মসূচি সরকারের গুরুত্বপুর্ণ বিষয়। আমরা উপর মহলের অপেক্ষায় আছি। কোনো নির্দেশনা ছাড়া এটি বন্ধ করা যাবে না।

 


আরো সংবাদ

সেই প্রিয়া সাহা করোনায় আক্রান্ত! (৫০৮৩৩)নিজ এলাকায় ত্রাণ দিয়ে ঢাকায় ফিরে করোনায় মৃত্যু, আতঙ্কে স্থানীয়রা (৪৪৬১১)বেওয়ারিশের মতো সারা রাত সঙ্গীতশিল্পীর লাশ পড়েছিল রাস্তায় (২৬৭২১)দীর্ঘদিন জেলখাটা আসামিদের মুক্তির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর (২০২৫৬)করোনা ছড়ানোয় চীনকে যে ভয়ঙ্কর শাস্তি দেয়ার দাবি উঠল জাতিসংঘে (১৬৩৮৯)কাশ্মিরে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে নিহত ভারতীয় দুর্ধর্ষ কমান্ডো দলের সব সদস্য (১৫৫২৩)রোজার ঈদের ছুটি পর্যন্ত বন্ধ হচ্ছে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান (১৩০৭৯)করোনার লক্ষণ নিয়ে নিজের বাড়িতে মরে পড়ে আছে ব্যবসায়ী, এগিয়ে আসছে না কেউ (১২৮০৫)ঢাকায় নতুন করে ৯টি এলাকা লকডাউন (১০৬৪৩)সবচেয়ে ভয়াবহ দিন আজ : মৃত্যু ৫, আক্রান্ত ৪১ (১০০৬১)