২৮ মার্চ ২০২০
চসিক নির্বাচন

মামলা ও ঋণমুক্ত রেজাউল মামলার ভারে জর্জরিত শাহাদাত

-

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মেয়রপ্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরীর নামে মোট ৭১ লাখ ৬৫ হাজার ৪৩৮ টাকা অস্থাবর সম্পদ রয়েছে। তার নামে কোনো ব্যাংক ঋণ নেই। থানায় বা আদালতে কোনো ধরনের মামলা বা অভিযোগও নেই তার বিরুদ্ধে। তবে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী ডা: শাহাদাত হোসেনের বিরুদ্ধে আদালতে ও নগরীর বিভিন্ন থানায় ৪৮টি মামলা রয়েছে।
দুই প্রার্থীর মনোনয়নপত্রের সাথে জমা দেয়া হলফনামা বিশ্লেষণ করে এ তথ্য জানা গেছে।
হলফনামার তথ্য অনুযায়ী, রেজাউল করিম চৌধুরী নিজের ও নির্ভরশীলদের মিলে বার্ষিক আয় ৮ লাখ ১৬ হাজার ৪০০ টাকা। তার মোট অস্থাবর সম্পদের মধ্যে নিজ নামে নগদ ১ লাখ টাকা, স্ত্রীর নামে ৩ লাখ ৫১ হাজার ৪০৯ টাকা। ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে জমাকৃত অর্থের পরিমাণ ৭ লাখ ৮ হাজার ৫৩৯ টাকা ও স্ত্রীর নামে ৩২ লাখ ২৭ হাজার ৯০ টাকা। পোস্টাল, সেভিংসে নিজ নামে না থাকলেও স্ত্রীর নামে ২০ হাজার টাকার প্রাইজবন্ড আছে।
রেজাউল করিমের নিজ নামে রয়েছে একটি ৪ লাখ টাকা দামের মোটর গাড়ি। স্বর্ণ ও অন্যান্য মূল্যবান ধাতুর মধ্যে বিবাহ সূত্রে নিজ নামে ৫০ হাজার টাকা মূল্যমানের ২০ তোলা স্বর্ণ ও স্ত্রীর নামে ৬০ হাজার টাকা মূল্যমানের ৪০ তোলা স্বর্ণ রয়েছে। বিবাহ সূত্রে নিজ নামে ১০ হাজার টাকার ইলেকট্রনিক সামগ্রী ও এক লাখ টাকার আসবাবপত্র আছে তার। অন্যান্য অস্থাবর সম্পদের মধ্যে নিজ ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের মূলধন ২ লাখ টাকা ও ফার্মের মূলধন দশ লাখ ৬ হাজার টাকা। স্ত্রীর নামে অন্যান্য অস্থাবর সম্পত্তি মেসার্স চৌধুরী ইলেকট্রনিক ২ লাখ ৮০ হাজার টাকা, ফার্মের মূলধন ২ লাখ ৫১ হাজার ৫০০ টাকা ও ঋণ হিসেবে প্রদত্ত চার লাখ টাকা।
রেজাউল করিম চৌধুরী হলফনামায় জানান, নিজের বার্ষিক আয় বাড়ি, অ্যাপার্টমেন্ট, দোকান থেকে ৪ লাখ ১৪ হাজার টাকা, ব্যবসায় নিজের কোনো আয় না থাকলেও নির্ভরশীলদের আয় তিন লাখ ৫০ হাজার টাকা এবং ফার্মের শেয়ার থেকে নিজের আয় দুই হাজার ১০০ টাকা ও নির্ভরশীলদের আয় ৫০ হাজার ৩০০ টাকা। স্থাবর সম্পদের মধ্যে রেজাউল করিম চৌধুরীর নিজের নামে কৃষি ও অকৃষি জমি না থাকলেও স্ত্রীর নামে রয়েছে ২ গণ্ডা দুই কড়া অকৃষি জমি। দালান, আবাসিক ও বাণিজ্যিক সম্পদের মধ্যে নিজ নামে উত্তরাধিকার সূত্রে প্রাপ্ত ভূমির ওপর আবাসিক গৃহমূল্য এক লাখ টাকা ও যৌথ মালিকানার ক্ষেত্রে প্রাপ্ত চার ভাগের এক অংশ। নিজ নামে চারটি অ্যাপার্টমেন্ট যার মূল্য এক কোটি ৯ লাখ ১৬ হাজার ৬৬৭ টাকা।
এ ছাড়াও রেজাউল করিম চৌধুরীর নামে কোনো ঋণ ও দেনা নেই। চট্টগ্রাম শহরের চান্দগাঁও থানাধীন বহদ্দারহাট এলাকার খ্যাতনামা বহদ্দার বাড়ির হারুন অর রশীদ চৌধুরী বড় সন্তান রেজাউল করিম চৌধুরীর শিক্ষাগত যোগ্যতা বিএ। রাজনৈতিক জীবনে কোনো মামলা-মোকদ্দমার মুখোমুখি হননি তিনি। পেশায় ব্যবসায়ী এ রাজনীতিবিদ মেসার্স চৌধুরী এন্টারপ্রাইজ নামে একটি প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী।
অপর দিকে বিএনপির মেয়র প্রার্থী ডা: শাহাদাত হোসেনের বার্ষিক আয় ২০ লাখ ৭৪ হাজার ৬২৫ টাকা। এর মধ্যে বাড়ি, অ্যাপার্টমেন্ট, দোকান বা অন্যান্য ভাড়া বাবদ আয় ৩ লাখ ৫৩ হাজার ২৫ টাকা এবং পেশাগত আয় ১৭ লাখ ২১ হাজার ৬০০ টাকা। নির্বাচন কমিশনে মনোনয়নপত্রের সাথে জমা দেয়া হলফনামায় সম্পদ বিবরণীতে এসব তথ্য দিয়েছেন শাহাদাত হোসেন।


আরো সংবাদ

বাংলাদেশে পাঠানো চিকিৎসা সরঞ্জাম নিয়ে চীনা দূতাবাসের বক্তব্য ৭ এপ্রিল পর্যন্ত স্থগিত থাকবে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট উত্তেজক ওষুধ খাইয়ে ছাত্রী ধর্ষণ, অত:পর শিক্ষক বহিস্কার নড়াইলে মাস্ক না পরায় চাকুরিজীবীকে বেধড়কভাবে পেটাল পুলিশ ভূরুঙ্গামারীতে নদে ডুবে ২ শিশুর মৃত্যু নাগরপুরে হিজড়া সম্প্রদায়কে সাহায্যের হাত বাড়ালেন ওসি করোনা পরিস্থিতিতে মাওলানা সাঈদীর মুক্তির আবেদন তুরস্কে করোনা সতর্কতায় ট্রাফিক লাইট সানাউল্লাহ মিয়ার মৃত্যুতে জামায়াতের শোক করোনাভাইরাসে মৃতদের দাফনে ফোকাল পয়েন্ট ও বিকল্প ফোকাল পয়েন্ট নিয়োগ দরিদ্র-অসহায় মানুষকে যেন ঘরের বাইরে যেতে না হয় : জিএম কাদের

সকল