০৩ এপ্রিল ২০২০
১ মার্চের আগেই বাতিলের দাবি

আইডিআরএর সার্কুলার বীমা সেক্টরে চরম নৈরাজ্য সৃষ্টি করবে

-

বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের (আইডিআরএ) গত ১০ ফেব্রুয়ারি জারিকৃত নন-লাইফ ৭৫/২০২০ সার্কুলার আগামী ১ মার্চের আগেই বাতিলের দাবি জানিয়েছে জেনারেল ইন্স্যুরেন্স কর্মকর্তা কল্যাণ পরিষদ।
গতকাল জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন থেকে তারা এ দাবি জানান। লিখিত বক্তব্যে তারা বলেন, আইডিআরএর ১০ ফেব্রুয়ারির সার্কুলার জেনারেল ইন্স্যুরেন্সের কর্মকর্তাদের কাছে বিনা মেঘে বজ্রপাতের মতো। এ সার্কুলারের মাধ্যমে আমাদের পেশা, পদ ও পদবিকে ধুলোয় মিশিয়ে দেয়া হয়েছে। একইসাথে বীমা প্রতিষ্ঠানগুলোকে ধ্বংস করে দেয়ার অবস্থা সৃষ্টি করা হয়েছে। তারা আরো বলেন, দেশে ৪৫টি জেনারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির অধীন ১৩৭০টি শাখায় লক্ষাধিক বীমা উন্নয়ন কর্মকর্তা রয়েছেন। তারা ২৫ থেকে ৩০ বছর ধরে এ পেশায় রয়েছেন। এসব কর্মকর্তা রাতদিন পরিশ্রম করে বছরে চার হাজার ৫০০ কোটি টাকার ব্যবসা করে সরকারের রাজস্ব আদায়ে ভূমিকা রাখছেন। কিন্তু আইডিআরএর সার্কুলার আমাদের হতাশ ও নির্বাক করেছে। যদি এ সার্কুলার গেজেট আকারে পাশ হয় তাহলে বীমা সেক্টরে চরম নৈরাজ্য সৃষ্টি হবে। কারণ যারা এতদিন বীমা উন্নয়ন কর্মকর্তা হিসেবে সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করছেন তাদের ২-৩ বছর পর কোম্পানির সিইও হওয়ার কথা ছিল। অথচ সার্কুলার বাস্তবায়িত হলে উল্টো পদমর্যাদা বিলুপ্ত হয়ে কমিশন এজেন্ট হয়ে যাবেন। এতে ২-৩ বছর পর সিইও সঙ্কট দেখা দিয়ে নৈরাজ্য দেখা দেবে। এ ছাড়া সার্কুলারে কোম্পানির নিট আয়ের ১০ শতাংশ বেতন ভাতার জন্য খরচ করতে পারবে বলে উল্লেখ করায় বীমা সেক্টরে অস্থিরতা সৃষ্টি হবে।
সংবাদ সম্মেলনে আগামী ১ মার্চ বীমা দিবসের আগেই সার্কুলার বাতিল করে ‘জেনারেল ইন্স্যুরেন্স কর্মকর্তা কল্যাণ পরিষদের সাথে সভা করার আহ্বান জানানো হয়।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, মো: বাকের মোরশেদ। পরিষদের আহ্বায়ক মো: মোকলেসুর রহমান খানের নেতৃত্বে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, নুরুল হুদা ডিউক, সাইফুল ইসলাম, মাহবুবুর রহমান, আলমগীর হোসেন প্রমুখ।


আরো সংবাদ