০৯ এপ্রিল ২০২০

আধিপত্য বিস্তার নিয়ে আশুলিয়ায় ৫ বাড়ি ও ১০ দোকানে হামলা

-

আশুলিয়ায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বুধবার রাতে যুবলীগ নেতার নেতৃত্বে ৫টি বাড়ি ও ১০টি দোকানে হামলা হয়েছে। এ সময় বাড়িগুলোর জানালার কাচ ও দোকানগুলোর সাটার কুপিয়ে ও পিটিয়ে এলাকায় ত্রাস সৃষ্টি করে তারা। আশুলিয়ার পূর্বনরসিংহপুর মৃধাবাড়ি এলাকায় ইয়ারপুরের যুবলীগ নেতা জুয়েল মোল্লার নেতৃত্বে এ সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে।
এ ব্যাপারে ইয়ারপুর ইউপির সাবেক সদস্য আবু সামা মৃধা জানান, বুধবার রাতে ৪০-৫০ জন লোক দা, লোহার রড ও হকিস্টিক নিয়ে এলাকার দোকানপাটের সাটার ও বাড়ির জানালার কাচ ও গেট কুপিয়ে ও পিটিয়ে ভাঙচুর করতে থাকে। এ সময় স্থানীয়রা ভয়ে বাড়ির গেট আটকিয়ে ভেতরে আতঙ্কিত হয়ে অবস্থান করছিল।
সরজমিনে দেখা যায়, বুধবার রাতের সন্ত্রাসী হামলায় আবু সামা মৃধা, হাসেম মৃধা, আবুল কালাম মাদবর, বেল্লাল মাদবর ও আব্দুল মতিনের বাড়িতে হামলা করে বাড়ির কাচ ও গেট ভাঙচুর করেছে। এ সময় রাস্তার পাশের প্রায় ১০টি দোকানের সাটার কুপিয়েছে তারা। ঘটনায় আবু সামা মৃধা আশুলিয়া থানায় জুয়েল মোল্লা গংয়ের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।
যুবলীগ নেতা জুয়েল মোল্লা এ হামলার কথা স্বীকার করে জানান, বুধবার সন্ধ্যায় তার মার্কেটের কর্মচারী আশরাফ উদ্দিন ও তার এক সহযোগী মৃধাবাড়ির একটি দোকানে কিস্তির টাকা ওঠাতে গেলে আবু সামা মৃধার লোকজন তাদের মারধর করে। এতে আশরাফ ও তার সহযোগী দু’জনই মারাত্মক আহত হয়েছেন। এ খবর মার্কেটে এ পৌঁছলে আশরাফের বন্ধুরা একত্রিত হয়ে এ মারধরের পাল্টা জবাব দেয়। এতে উভয় পক্ষের হামলা-পাল্টা হামলায় দোকান পাটের সাটারের ক্ষতি ও কাচ ভেঙেছে। এ ব্যাপারে বাড়ির মালিকদের সাথে তার ঝামেলা মিটে গেছে। ঘটনায় জুয়েল মোল্লা আবু সামা মৃধার বিরুদ্ধে মার্কেটের কর্মচারীকে মারধরের একটি লিখিত অভিযোগ থানায় করেছে।
এ ব্যাপারে আশুলিয়া থানার ওসি রিজাউল হক দিপু জানান, মারামারির ঘটনায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আরো সংবাদ